Sakib’s Hidden Gems – Episode #42

আনিমে: Log Horizon
জানরা: ফ্যান্টাসি, গেম, একশন, এডভেঞ্চার
এপিসোড সংখ্যা: ২৫ + ২৫ + ১২
MAL লিঙ্ক: https://myanimelist.net/anime/17265/Log_Horizon
 
জনপ্রিয় রোল প্লেয়িং গেম “এল্ডার টেইল” এর বেশ কিছু প্লেয়ার হঠাত একদিন তাদের প্রিয় গেমের জগতের ভিতরে চলে যায়। লগ আউট করার অপশন না থাকায় তৎক্ষণাৎ ওদের নিজেদের জগতে ফেরার কোন উপায় থাকে না। তারা অনুভব করে যে, এই গেমের জগতটা এখন তাদের কাছে নিজের জগতের মতই বাস্তব। গেমে যারা ছিল নন প্লেয়িং ক্যারাকটার (NPC), তারা এখানে নিজেদের “পিপল অফ দা ল্যান্ড” বলা রক্তমাংসের মানুষ। এভাবেই শুরু হয় গল্পের নায়ক শিরোয়ে ও বাকি সবার এই নতুন জগতে নিজেদের খাপ খাওয়ানোর ও পিপল অফ দা ল্যান্ড-দের সাথে সুসম্পর্ক বজায় রাখার সংগ্রাম। একই সাথে চলতে থাকে ওদের নিজেদের জগতে ফিরবার পথের অনুসন্ধান।
 
সেটিং দেখেই অনেকের বাদ দেওয়ার ইচ্ছা চাগাড় দিয়ে উঠতেই পারে। কিন্তু আসলে এই সেটিং-এর মধ্যেও কী নিপুণভাবে গল্পের এক্সিকিউশন হয়েছে তাই দেখবার বিষয়। সাধারণ দু-দশটা গল্পের মত এইটাতে গল্পের নায়ক মোটেই মন্সটার মারা আর হারেম বানানোর দিকে মনোযোগ দেয় না। বরং একেবারেই জীবনমুখী ও লজিক্যাল সমস্যার সমাধানের চেষ্টা করে। যেমনঃ নতুন জগত সম্বন্ধে প্রথমেই তথ্য অনুসন্ধান করা, নিজেদের থাকার জন্য একটা নিরাপদ আশ্রয়ের ব্যবস্থা করা, অন্যান্য প্লেয়ারদের সাথে আর পিপল অফ দা ল্যান্ড-দের সাথে বিভিন্ন চুক্তি ও আলোচনার মাধ্যমে স্বার্থসিদ্ধির চেষ্টা করা, এবং নিজেদের জগতে ফেরার উপায় খোঁজা। নায়কের প্রতিটি সিদ্ধান্ত ও কাজের মধ্যেই যুক্তি আছে, যা দেখে যে কারোরই ভালো লাগার কথা। ও আর আনিমেটির ওপেনিং গানটি অসাধারণ।
 
ফ্যান্টাসি আর গেমনির্ভর উঁচুমানের আনিমের খোঁজে থাকলে অবশ্যই দেখবেন।
 

Sakib’s Hidden Gems – Episode #41

আনিমে: Giant Killing

জানরা: স্পোর্টস, ড্রামা, সেইনেন
এপিসোড সংখ্যা: ২৬
MAL লিঙ্ক: https://myanimelist.net/anime/7661/Giant_Killing
 
জাপানিজ সকার লীগের এককালের শক্তিশালী দল ইস্ট টোকিও ইউনাইটেড (ইটিইউ) কয়েক বছর ধরেই খুব বাজে পারফরম্যান্স করে আসছে। প্রথম সারির দল থেকে নিচে নামার দ্বারপ্রান্তে থাকা টিমের ম্যানেজম্যান্ট এক শেষ চেষ্টা হিসেবে তাতসুমি তাকেশি নামের একজনকে ইংল্যান্ড থেকে ধরে এনে ম্যানেজার হিসাবে নিয়োগ দেয়। গল্পের নায়ক এই তাতসুমি, ইটিইউ এর প্রাক্তন খেলোয়াড় ছিল। ইটিইউ সাফল্যের তুঙ্গে থাকা অবস্থায় সে কোন এক কারণে দল ত্যাগ করে ইংল্যান্ডে চলে যায়। এর পর থেকে ইটিইউ আর উঠে দাঁড়াতে পারছে না। শুরুতে তাই দলের অনেক সদস্য আর পুরানো ভক্তরা ওকে মেনে নিতে পারেনি। কিন্তু তাতসুমি ওর অভিনব কোচিং স্টাইল আর ভালো ফলাফলের জোরে ধীরে ধীরে এই অবস্থায় পরিবর্তন আনতে থাকে। তাতসুমির নেতৃত্বে পুনরুজ্জীবিত ইটিইউ একের পর এক লীগের লড়াইয়ে সামনের সারিতে থাকা দলগুলোর সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে থাকে।
 
ভিজুয়াল, সাউন্ড, আর্ট, তথা সবমিলিয়ে প্রোডাকশন কোয়ালিটি বেশি না হলেও আনিমেটির গল্পই এর আকর্ষণ। রিয়ালিস্টিক আনিমেটিতে প্রফেশনাল ফুটবলের জগত সম্পর্কে ভালো একটা ধারণা পাওয়া যায়। প্রতিটা ম্যাচ হয় দারুণ গেম স্ট্র্যাটেজির উপর ভিত্তি করে। জমজমাট উত্তেজনায় সময় পার হয়ে যায় নিমেষেই।
 
স্পোর্টস আনিমে ভক্তরা এইটা নিশ্চয়ই দেখবেন। আর সামনের গল্প জানতে মাঙ্গাও পড়ে দেখতে পারেন।
 

How to Fight [ওয়েবটুন রিভিউ] — Md. Anik Hossain

ভিডিও ব্লগিং বা Vlogging হাল আমলের তুমুল জনপ্রিয় জিনিস। বিশেষত ভিডিও আপলোড করে অর্থ উপার্জনের দুয়ার খুলে যাওয়ায় অনেকে জীবিকার পথ হিসাবেই বেঁছে নিয়েছে এটা। যা একটি বৈপ্লবিক ব্যাপার। ইউটিউব, বা চীনের উইবু এর মতো প্লাটফর্ম এই বিপ্লবে সবচেয়ে বেশি ভূমিকা রেখেছে। শুধু যে অর্থ আয়ের রাস্তা তা নয়, রীতিমতো সেলিব্রেটি বনে গেছে অনেকে ভিডিও ব্লগিং করে। তো ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করে পয়সা, খ্যাতি অর্জন নিয়ে চমৎকার একটা ওয়েবটুন/মানহোয়া রয়েছে। নাম How to Fight.
 
☆কাহিনী সারসংক্ষেপ✰
হবিন এক গরিব হাই স্কুল পড়ুয়া ছেলে। দুর্বল হবিনের উপর সহপাঠীদের bullying চলে। চুপচাপ সহ্য করে গেলেও একদিন সহ্যের বাধ ভেঙে একজনের সাথে মারামারি লেগে যায়। কিন্তু অপ্রত্যাশিতভাবে এই মারামারির দৃশ্য লাইভ ভিডিও আকারে আপলোড হয়ে যায়। আর এতেই সে রাতারাতি ভাইরাল হয়ে উঠে! এরপর সেই ভিডিও কে কাজে লাগিয়ে নতুন চ্যানেলকে আরো জনপ্রিয় করার মনস্থির করে হবিন। যাতে প্রত্যক্ষভাবে উৎসাহ যুগিয়েছে টাকা আয়ের বাসনা। সিদ্ধান্ত নেয় মারামারির ভিডিও আপলোড করেই চ্যানেলটা গড়ে তুলবে। কিন্তু দুর্বল ছোট্টখাট্টো হবিন এর সাথে আর যাই হোক মারামারির ব্যাপারটা যায় না। তাই ইউটিউব থেকেই ঘরোয়া উপায়ে মারামারি শিখার টিউটোরিয়াল দেখে ভ্লগিং করার খোঁজ চালায় সে। এরপর যা হয় তা বললে স্পয়লার হয়ে যাবে মনে হয়। তাই বেশি কিছু বললাম না।
মানহোয়ার আর্ট খুব নজরকাড়া। মুখের অভিব্যক্তিগুলো তো দেখার মতো। উদাহরণ হিসাবে ৩য় ছবিটি দেখুন। চরিত্রগুলোর বিকাশ বেশ ভালো লাগছে এখন পর্যন্ত। মানহোয়াটার মূল আকর্ষণ এটার মারামারির দৃশ্যগুলি। মজার ব্যাপার হলো, মারামারিতে বাস্তব মার্শাল আর্ট / স্পোর্টস এর বিভিন্ন রেফারেন্স ব্যবহার করা হয়েছে। মার্শাল আর্ট নিয়ে আগা-মাথা কিছু না জানলেও মারামারিগুলো দেখতে চরম আকর্ষণীয় লাগে। সম্প্রতি Line Webtoon থেকে ইংরেজি অনুবাদ প্রকাশ করা শুরু হয়েছে Viral Hit নামে। কিন্তু শুনেছি অনুবাদ সুবিধার না। PH Scans, Death Troll স্ক্যানলেশন গ্রুপের ব্যানারে ৫৮ টা চাপ্টার বের হয়েছে এখন পর্যন্ত। তাদেরটা পড়ে দেখতে পারেন।
অতিরিক্ত তথ্য- এই ওয়েবটুন এর স্রষ্টা এর আগে জনপ্রিয় Lookism সিরিজটা তৈরি করেছেন।
 
 
 
 

Sakib’s Hidden Gems – Episode #40

আনিমে: Yama no Susume (Encouragement of Climb)

জানরা: স্লাইস অফ লাইফ, এডভেঞ্চার
এপিসোড সংখ্যা: (১৩টি ৩ মিনিট) + (২৬টি ১৩ মিনিট) + (১টি ২৬ মিনিট) + (১৩টি ১৩ মিনিট)
MAL লিঙ্ক: https://myanimelist.net/anime/14355/Yama_no_Susume
 
হাইস্কুলের প্রথম বর্ষের ছাত্রী ইয়ুকিমুরা আওই ছোট থাকতে পাহাড়ে চড়তে খুব আগ্রহী ছিল। কিন্তু ক্লাইম্বিং করতে গিয়ে এক দুর্ঘটনায় পড়ে তাকে অনেকদিন হাসপাতালে থাকতে হয়েছিল। সুস্থ হয়েও অনেকদিন মানুষজনের সাথে না মেশার দরুন ও সোশ্যালি অকওয়ার্ড হয়ে যায়। এছাড়া ওর মধ্যে দেখা দেয় উচ্চতা ভীতি। এমন সময় ওর সামনে হাজির হয় ওর ছোটবেলার সখী ও পাহাড়ে চড়ার সাথী হিনাতা। ও একরকম জোর করেই আওইকে আবার পাহাড়ে চড়া শুরু করায়। এরই সাথে শুরু হয় আওই এর পাহাড়ে ওঠার চেষ্টা, আর তারই সাথে মানুষের সঙ্গে স্বচ্ছন্দে মিশবার আরো এক পর্বত জয়ের চেষ্টা।
 
ভিজুয়াল আর ক্যারাকটার ডিজাইন খুব সুন্দর এইটার। বিশেষত প্রথম সিজনের আর্ট চোখে লেগে থাকে। গল্পের মেসেজগুলি বাস্তবের সাথে রিলেট করা যায়, পর্বতারোহণের টুকিটাকি টিপস পাওয়া যায়। চরিত্রগুলিকে ভালো লেগে যায় আর সহজেই ওদের জায়গায় নিজেকে কল্পনা করা যায়। ওদের মধ্যে সম্পর্কের ভাঙ্গা-গড়ার মুহূর্তগুলি আর ওদের ধীরে ধীরে আরো বেশি মানসিকভাবে পরিপক্ক হয়ে উঠা দেখতে বেশ তৃপ্তি আসে।
 
কামিং অফ এজ স্লাইস অফ লাইফ আর মোয়ে আনিমে ভক্তরা অবশ্যই এটা ট্রাই দিয়ে দেখবেন।
 

Sakib’s Hidden Gems – Episode #39

আনিমে: ACCA: 13-ku Kansatsu-ka (ACCA: 13-Territory Inspection Dept.)

জানরা: মিস্টেরি, ড্রামা, সেইনেন
এপিসোড সংখ্যা: ১২
MAL লিঙ্ক: https://myanimelist.net/anime/33337/ACCA__13-ku_Kansatsu-ka
 
এই পলিটিকাল থ্রিলারটির ঘটনাস্থল দোওয়া রাজ্য। ১৩টা স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল নিয়ে গঠিত এই রাজ্যের শান্তি রক্ষার্থে নিয়োজিত পুলিশ বাহিনী হল ACCA। গল্পের নায়ক জিন ওউটাস হল আক্কার প্রধান কার্যালয়ের একজন পুলিশ কর্মকর্তা। একদিন আক্কা বাহিনীর কাছে উড়ো খবর আসে যে, কে বা কারা অভ্যুত্থান ঘটিয়ে দোওয়া রাজ্যের ক্ষমতা নিতে চায়। এই খবরের সত্যতা বিচারে জিনকে বলা হয় ১৩টি অঞ্চলের শাখায় গিয়ে সকল কাগজপত্র নিরীক্ষা করতে ও কোন দুর্নীতি বা অনিয়মের সন্ধান পেলে রিপোর্ট করতে। জিন তৎক্ষণাৎ কাজে লেগে পড়ে। কিন্তু এদিকে ওকে ও আক্কাকে কেন্দ্র করে চলতে থাকে আরো গভীর একটি ষড়যন্ত্র। জিন কী পারবে এই ষড়যন্ত্রের স্বরূপ ও মূল হোতাকে চিহ্নিত করতে?
 
আনিমেটির ভিজুয়াল খুবই মনোরম। ক্যারাকটার ডিজাইন খুব আরটিস্টিক। পর্ব শুরুর গানটি খুবই ক্যাচি, আর ওএসটি চয়েস উঁচুমানের। তবে সবকিছুকে ছাপিয়ে যায় গল্পের ডিরেকশন। গল্পটি প্রতি মুহূর্তে সাসপেন্স ধরে রেখে সুনিপুণভাবে এগিয়ে যায় অত্যন্ত তৃপ্তিকর একটি পরিসমাপ্তির দিকে।
 
কিছুটা ধীরলয়ের গল্পে আপত্তি না থাকলে অবশ্যই এটি দেখবেন। সময়টা ভালই কাটবে আশা করি।
 

Sakib’s Hidden Gems – Episode #38

আনিমে: Kuuchuu Buranko (Welcome to Irabu’s Office)

জানরা: সাইকোলজিকাল, সেইনেন
এপিসোড সংখ্যা: ১১
MAL লিঙ্ক: https://myanimelist.net/anime/6774/Kuuchuu_Buranko
 
শরীরের দিক দিয়ে সুস্থ থাকলেও মনের দিক দিয়ে কয়জনই বা সম্পূর্ণ সুস্থ? আমাদের চারপাশে মানসিক অসুবিধায় ভোগা মানুষের অভাব নেই। আজকে আলোচনা করব মানুষের নানা রকম মানসিক রোগের চিকিৎসা নিয়ে একটি আনিমে নিয়ে।
 
ডাঃ ইরাবু ইচিরৌ একজন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ। আনিমের প্রতিটি এপিসোডে ওর কাছে নানারকম বিচিত্র মানসিক সমস্যায় ভোগা লোকজন আসে। আপাতদৃষ্টিতে সমস্যাগুলো জটিল মনে হলেও বিচক্ষণ কাউন্সেলিং এর দ্বারা ইরাবু ওদের সমস্যার সমাধান দেয়। সমস্যাগুলি যেমন জটিল, তাদের সমাধান যেন ততই সহজ। এছাড়া আনিমের ফাঁকে ফাঁকে বিশেষজ্ঞ মনোবিদের কমেন্টারি থেকে অনেক কিছু শেখাও যায়।
 
শুধু টপিকের দিক দিয়েই নয়, আনিমেটির লুক এন্ড ফিল ও বেশ অভিনব। নানা রঙের ব্যবহার, লাইভ একশন সিনের ব্যবহার, ও সিম্বলিজম মিলে একটি অনন্য আরটিস্টিক অভিজ্ঞতা দেয়। প্রতি পর্ব শুরু ও শেষের গান দুইটি বেশ চমকপ্রদ।
 
মানুষের মন সম্পর্কে জানতে চাইলে এই আনিমেটি ট্রাই করবেন।
 

Sakib’s Hidden Gems – Episode #37

আনিমে: Cross Game

জানরা: ড্রামা, রোমান্স, স্পোর্টস, কমেডি
এপিসোড সংখ্যা: ৫০
MAL লিঙ্ক: https://myanimelist.net/anime/5941/Cross_Game
 
বেসবল ও রোমান্সের মিশেল এই গল্পের প্রধান দুই চরিত্রের একজন হল কিতামুরা কৌ, এক খেলার দোকানের মালিকের একমাত্র ছেলে। আরেকজন হল সুকিশিমা আওবা, এক বেসবল ব্যাটিং সেন্টারের মালিকের তিন মেয়ের মধ্যে মেজ। প্রাইমারি স্কুলে থাকতে কৌ এর সাথে আওবার বড় বোন ওয়াকাবার প্রেমের সম্পর্ক ছিল। এদিকে আওবা ওর বোনকে পছন্দ করত বলে এই দুজনের মেলামেশাতে বিরক্ত হত। ওয়াকাবাকে নিয়ে দুজন এক ধরণের প্রতিদ্বন্দ্বিতায় মেতে উঠত যেন। একদিন ঘটে গেল এক দুর্ঘটনা। ওয়াকাবা পানিতে ডুবে প্রাণ হারাল। প্রিয় মানুষের আকস্মিক মৃত্যুতে কৌ আর আওবার জীবনে কী পরিবর্তন আসবে?
 
ছোটবেলা থেকেই কৌ এর প্রতিভার অভাব নেই। যা-ই করতে চায়, তাতেই সে ভালো করে। কিন্তু অধ্যবসায়ের অভাবে হুট করে একটা ফেলে আরেক জিনিসের পিছে ছুটে যায়। আর কোন কিছুকেই যেন সিরিয়াস ভাবে নেয় না। ওয়াকাবাকে হারিয়ে এখন কী সে নিজের জীবন আর ক্যারিয়ারকে সিরিয়াসলি নেবার চেষ্টা করবে? নিছক সময় কাটানোর জন্য বেছে নেওয়া বেসবল খেলাতে সে কী মনোনিবেশ করবে?
 
এদিকে ছোটবেলা থেকেই বেসবল থ্রোতে পারদর্শী আওবা কী ওর সাথে কৌ এর মিলগুলি বুঝে উঠতে পারবে? জীবনকে আবার ঢেলে সাজাতে পারবে? সময়ই এই সবকিছুর উত্তর দেবে।
 
ভিজুয়াল আর ক্যারাক্টার ডিজাইন বেশ ভালো, গল্পের ধাঁচের সাথে বেশ ভালো মানায়। মিউজিকের ব্যবহারও দারুণ। বিশেষ করে এপিসোড শেষের গানটা খুব ভালো। পেসিং ঠিকঠাক (একই লেখকের কাছাকাছি আরেকটি আনিমে Touch এর তুলনায় বেশ ভালো)। টানটান উত্তেজনাপূর্ণ কিছু বেসবল ম্যাচ আছে। এ ছাড়াও ড্রামা আর কমেডির মিশেলটাও বেশ উপভোগ্য।
 
বেসবল নিয়ে কিছুটা হাল্কা স্বাদের আনিমের খোঁজে থাকলে এটি চেখে দেখবেন। এটি পছন্দ হলে H2, Touch – এই আনিমেগুলিও ভালো লাগবে।
 

Sakib’s Hidden Gems – Episode #36

আনিমে: Koto Aitheria no Izakaya Nobu (Isekai Izakaya: Japanese Food From Another World)

জানরা: ইসেকাই, স্লাইস অফ লাইফ
এপিসোড সংখ্যা: ২৪ (১৪ মিনিটের এপিসোড)
MAL লিঙ্ক: https://myanimelist.net/anime/34420/Isekai_Izakaya__Koto_Aitheria_no_Izakaya_Nobu
 
জাপানের কিয়োতোতে আছে “ইযাকায়া নোবু” নামের একটি পানশালা। এর দায়িত্বে আছে অভিজ্ঞ মাস্টার শেফ নোবু, আর সুন্দরী পরিচারিকা শিনোবু। বাইরের দিক থেকে সবই সাধারণ লাগলেও এই পানশালার পিছনের দরজা দিয়ে নাকি চলে যাওয়া যায় অন্য আরেক জগতে! গল্পের একেকটি পর্বে ঐ অন্য জগত থেকে ভিন্ন ভিন্ন খদ্দের আসে পান করতে, আর সাথে সুবিধামত হাল্কা খাওয়াদাওয়া করতে। ইযাকায়া নোবু ওদের কখনো হতাশ করে না। একেকটি পর্বে একেক রকম সুস্বাদু খাওয়া ও তার রেসিপি আমরা পেয়ে যাই।
 
আনিমেটির ভিজুয়াল ও ক্যারাক্টার ডিজাইন যথেষ্ট ভালো। বেশ হাসিখুসির একটা আমেজ বজায় থাকে। সুস্বাদু খাবার গুলো দেখে জিভে জল এসে যায়। আর একটা ইন্টারেস্টিং দিক হলো, গল্পের শেষে একটা লাইভ একশন পার্ট থাকে। সেখানে জাপানের যেকোন একটা বারে নিয়ে যাওয়া হয়। গল্পে দেখানো ডিশটি সেখানে দেখানো হয়। কোন কোন সময় তার প্রস্তুত প্রণালীও জানা যায়।
 
আপনি যদি ভোজনরসিক হন, বা জাপানের বারের প্রতি যদি আগ্রহ থাকে, বা স্রেফ হাল্কা স্বাদের ছোটখাট আনিমের খোঁজে থাকেন, তাইলে এই আনিমেটি চেখে দেখতে ভুলবেন না যেন।
 
 

Sakib’s Hidden Gems – Episode #35

আনিমে: Layton Mystery Tanteisha: Katri no Nazotoki File

জানরা: মিস্টেরি, কমেডি
এপিসোড সংখ্যা: ৫০
MAL লিঙ্ক: https://myanimelist.net/anime/37023/Layton_Mystery_Tanteisha__Katri_no_Nazotoki_File
 
এপিসোডিক এই ডিটেকটিভ আনিমেটির কেন্দ্রীয় চরিত্র হল প্রখ্যাত গোয়েন্দা প্রফেসর লেইটন এর মেয়ে কাত্রিয়েল লেইটন। কাত্রিয়েল যখন ছোট, তখন ওর প্রিয় বাবা এক জটিল রহস্যের সমাধান করতে গিয়ে নিরুদ্দেশ হন। বাবার অনুপস্থিতিতে ওনার ডিটেকটিভ এজেন্সির দায়ভার কাঁধে তুলে নেয় কাত্রিয়েল। তার সহকারি নোয়াহ মিলে ও একের পর এক রহস্যের সমাধান করে। আর একই সাথে নিরুদ্দিষ্ট বাবার সন্ধান করে।
 
গল্পের রহস্যগুলির মান বেশ ভালো। যুক্তির প্রয়োগ ঠিকঠাক, আর ফাঁকফোকর চোখে পড়ে না বললেই চলে। প্রতিটি এপিসোডের মধ্যে দর্শকদের ক্লু দেওয়া হয়, যাতে কাত্রিয়েলের সাথে ওরাও নিজে নিজে সমাধানের সুযোগ পায়। আর চেষ্টা করলে কিন্তু অনেকগুলি নিজে থেকে পারাও যায়।
 
আনিমেটাতে আগাগোড়াই একটা হাল্কা ও মজার আমেজ বজায় রাখা হয়েছে। আর্টস্টাইল দেখলে ওয়েস্টার্ন কার্টুনের কথাই মনে পড়ে বেশি। আর নায়িকা কাত্রিয়েল খুব মনকাড়া ও মজাদার চরিত্র। স্বনামধন্য ভয়েস এক্টর কানা হানাযাওয়ার কণ্ঠে চরিত্রটি বিশেষভাবে প্রাণ পেয়েছে।
 
হাল্কা স্বাদের আনিমে বা ভালো ডিটেকটিভ আনিমের খোঁজে থাকলে এটা ট্রাই মেরে দেখতে পারেন।
 
Layton
 

Sakib’s Hidden Gems – Episode #34

আনিমে: Aria

জানরা: স্লাইস অফ লাইফ, ফ্যান্টাসি, সাইফাই
এপিসোড সংখ্যা: ১৩ + ২৬ + ১ + ১৩ + ১ = ৫৪
MAL লিঙ্ক: https://myanimelist.net/anime/477/Aria_the_Animation
 
দূর ভবিষ্যতের কথা। “ম্যান-হোম” এ (মানে এখনকার পৃথিবী) বসবাসকারী মানুষেরা “অ্যাকুয়া” (মানে মঙ্গল গ্রহ) কে বসবাসের উপযোগী করেছে। পানিতে টলমল আকুয়ার একটি শহর হল “নিও-ভেনেযিয়া”, যা মূলত ইতালির ভেনিস শহরের আদলে নির্মিত। ম্যান-হোম থেকে গল্পের কেন্দ্রীয় চরিত্র মিযুনাশি আকারি নিও-ভেনেযিয়াতে এসেছে। সে এখানে একজন “প্রিমা উন্ডিনে” (মানে ছোট নৌকা বা গন্ডোলা চালক) হতে চায়। তো সেজন্য সে আলিসিয়া নামক এক প্রফেসনাল উন্ডিনের কাছে প্রশিক্ষণ নেয়। ওর একজন প্রফেসনাল উন্ডিনে হয়ে উঠা নিয়েই গল্প।
 
এই এপিসোডিক আনিমেটি মূলত ইয়াশিকেই বা Healing Anime এর কাতারে পড়ে। বেশ ধীরলয়ের ও মনোরম এই আনিমেটি সারাদিনের ক্লান্তি ভুলিয়ে দেয়। আকারি ও ওরই মত শিক্ষানবিশ উন্ডিনে আইকা ও অ্যালিসের সাথে আমরাও অ্যাকুয়ার কোলাহলমুক্ত ও মধুর পরিবেশটা উপভোগের সু্যোগ পাই। মনমুগ্ধকর ওএসটি শুনে মনটা কেমন উদাস হয়ে যায়। আর খুব সুন্দরভাবে ডেভেলপ করা চরিত্রগুলিকে একান্ত আপন বোধ হয়। গল্পের ফাঁকে বেশ কিছু লাইফ লেসন ওয়ালা সংলাপ ও আছে – যা শুনলে ভালো লেগে যায়।
 
ব্যস্ততার ফাঁকে, অন্য আনিমে দেখার ফাঁকে এক-দুইটা এপিসোড করে দেখবেন। আশা করি ভালো লাগবে।
[দেখার সিরিয়ালঃ Aria the Animation -> Natural -> Arietta -> Origination -> Avvenire]