“Shingeki no kyojin” – Debate from Animekhor BD group

 

Asiful Haque:
“মাঙ্গা পড়ি নাই; আর এনিম ২১ এপি পর্যন্ত দেখসি; সুতরাং স্পয়লারের ভয় নেই বললেই চলে”
“এনিম – Shingeki no kyojin”
এই সম্প্রতি শেষ দুইটা পর্ব দেখলাম। এর মধ্যেই গ্রুপে এবং গ্রুপের বাইরে এই এনিমটাকে নিয়ে প্রচুর আলাপ আলোচনা হয়েছে; হচ্ছে। এই পোস্টটা মুলত এখন পর্যন্ত SnK কে নিয়ে আমার ইম্প্রেশনের।

সত্যি বলতে SnK আমাকে ততটা আকর্ষণ করতে পারে নি যতটা ভেবেছিলাম। হ্যাঁ; এটা সত্য যে প্রথম দুই তিনটে এপি আমার অতীতের এনিম দেখার অনেক ধ্যান ধারণাকেই নাড়িয়ে দিয়েছিলো; প্লট কিংবা ঘটনা – সব কিছুই খানিকটা অন্যরকম ছিল। তারপর একের পর এক লিড ক্যারেক্টারের মৃত্যু খানিক বিরক্ত করলেও ভেবেছিলাম এবার একেবারেই “out of the box” কিছু দেখতে পারব। কিন্তু এর পর কেন যেন চমকগুলোও খানিক একঘেয়ে লাগা শুরু হইল। আর সবচেয়ে বড় সমস্যা মে বি ক্যারেক্টারগুলোর প্রতি কোন টান সৃষ্টি না হওয়া; এতটাই কাঠখোট্টা ক্যারেকটার ডেভেলপমেন্ট মনে হয়েছে আমার কাছে। হয়ত বলবেন; বেশি পর্ব এয়ার হয় নি; ক্যারেক্টার ডেভেলপমেন্ট হবে কি করে? ওয়েল; কিছু কিছু কম পর্বের এনিমও; যেমন ওভার ড্রাইভের মিকতো বা এই ধরণের কিছু ক্যারেক্টার কিন্তু বহুদিন মনে রাখার মত ছিল। তা হলে এখন একটা প্রশ্ন? আমার কাছে কি SnK কে ওভাররেটেড মনে হয়? মোটেও না। কেউ একজন বলেছিলেন; “যারা এনিম দেখে না তাদের জন্য এটা বিরাট এডভারটাইজমেন্ট।” আমি একমত। ইন্টারেস্টিং প্লট; বিগ বাজেট – বাট দিনশেষে খুব একটা দাগ ফেলতে পারে নি – অনেকটা বিগ বাজেট কমেডি বলিউডি মুভির মত; দেখলাম; খুব ভাল লাগলো; মজা করলাম; তারপর ভুলে গেলাম। SnK তাই কোন দিক দিয়েই আমার ফেভারিট এনিমগুলোর লিস্টে নাই এবং এই লিস্টে ঢুকতে একে পাড়ি দিতে হবে আরও অনেকটা পথ।

Gourab Roy SNK এল্রডি আমার ফেভারিট লিস্টে ঢুকে পড়ছে।আউট অফ দ্যা বক্স তেমন কিছু হয়ত না ও লাগতে পারে,কিন্তু,এনিমের মেকিং,সাউন্ডট্রাক,রিসেন্টলি বের হওউয়া যে কোন এনিমের থেকে ফার বেটার,আর কাহিনির প্রয়জনেই চরিত্র গুলা এমন কাট খোট্ট।তার মদ্ধে দিয়ে যখন এক এক জনের সামান্য দুরবলতা প্রকাশ পায় তখন অনেক ভাল্লাগে।আর snk তে মনে রাখার মত বহু কেরা আছে,বলএ সময় নস্ট।আর যারা এনিম দেখে না ,তাদের শুরু তে এই এনিম দেখলে কত টুকু ভালো লাগবে তা নিয়ে যথেস্ট সন্দেহ আছে. ওভার রেটিং এর কোন প্রশ্নি আসেনা।যত টুকু পথ পাড়ি দিছে,তা বিজয় গর্বে পাড়ি দিছে,পরে কি হবে জানিনা।আর এইটারে অনপিস নারুতো এগুলার সাথে তুলনা করা নিতান্ত ছেলেমানুশি, এই মেইন্সট্রিম এনিম গুলা বছরের পর বছর চলে আসছে,আরো কত বছ্র চলবে জানিনা,বাট এগুলি হল এনিম খোর দের বেসিক নিড. we cant live without these…….আর অনেক সময় ভাল লাগার জন্য এত কিছু লাগেনা,জাস্ট ভালো লাগে…….বাট দুই এপিসোডের মদ্ধে যেসব কেরা মারা যায়, স্বিকার করতে হবে তাদের জন্য অন্নেক খ্রাপ লাগে….সো কেরা গুলা হ্রিদয়স্প্ররশি দো ইটস ফর আ শর্ট টাইম..

Md Asiful Haque নাম্বার ১ – এনিম ভাল হইলে আমার কোন লস নাই; পুরাটাই লাভ  

নাম্বার ২ – আমি কখনই এক এনিমের সাথে আরেক এনিমের তুলনা করা পছন্দ করি না; আর SnK এর মত নতুন বাজারে আসা এনিমের সাথে ব্লিচ নারুতোর তো না-ই। অইগুলা একেকটা ক্যারেক্টার ডেভেলপমেন্ট এ যেই এপি ইউজ করসে; এইটা পুরা এনিম মিলাইয়াও তার অর্ধেকও হয় নাই; সেই জন্যই হয়ত ইতাচি বা এইসের মৃত্যু আমাদের কাঁদাইয়াই ছাড়ে; বাট SnKতে এক পর্বে ৬-৭ জন মরে গেলেও আমি বিরক্ত হই; দুঃখ পাই না। এবং সেইটাই বলতে চাইসি; আরেকটু সময় নিয়ে কাহিনীটা আরেকটু আস্তে আস্তে জমাইলে মে বি বেটার হইত।

নাম্বার ৩ – আমি কিন্তু একবারও ওভাররেটেড বলি নাই; বরং এইরকম জনপ্রিয়তা পাওয়ার সকল উপাদানই এর মধ্যে আছে; যেমন চেন্নাই এক্সপ্রেস সেরা ব্যাবসা সফল মুভি হয়; নাচ গান কমেডি (SnK এর ক্ষেত্রে এর কাহিনীর চমক) – সবই আছে; কিন্তু দিনশেষে এইটা একটা ক্ষণিক এন্টারটেইনমেন্ট; স্থায়ী হয় না যেইটা। তবে অবশ্যই আশা করি সামনে এইটা আরও ভাল এবং স্থায়ী ইম্প্রেশন ফেলবে আমার উপর

Tahsin Faruque Aninda 
এইটা ডেফিনিটলি আমার মনে দাগ কাটা না, একদম পার্মানেন্ট ঘা বানায় দেওয়া আনিমেগুলার একটা। শুরুর মুহুর্ত থেকেই একটা জিনিসই এই আনিমের মেইন জিনিস – survival of the fittest
এই থিমটা এত বেশিই মেনে চলেছে যে সচরাচর অন্য আনিমেতে যা দেখানোর দুঃসাহস করে না, এখানে সেই ধুমধাম মেইন ক্যারেক্টারদের মেরে ফেলে।
প্রশ্ন আসে, এত কম স্ক্রিনটাইম নিয়ে মরে যাওয়া একেকজনকে মেইন ক্যারেক্টার কেমনে বলি? বলি এই কারণে যে মৃত্যুর আগ মুহুর্তে ঐ সময়ে কাহিনির মেইন ক্যারেক্টার সে/তারা ছিল।
এটা ডেফিনিটিলি একটা অন্যরকম আনিমে। আর আমার দেখা সেরাগুলার একটা অবশ্যই

সবার মধ্যে শুরু থেকে “এতগুলা প্রশ্ন জেগেছে যার উত্তর পাই নাই” এরকম দেখা যাচ্ছে। সব প্রশ্নের উত্তর যদি আনিমের মাঝ পথে দিয়েই দেয় তাইলে বাকি পর্বগুলাতে আর পরের সিজনে/সিজনগুলাতে কি দেখাবে!??!
আমরা যারা এপিক টাইপ আনিমে [death note, code geass, fma, fmab] দেখেছি বা দেখছি, অলমোস্ট সবাই একবারেই সব সিজন আর সব এপিসোড কালেক্ট করে দেখেছি। তাই একবারে দেখে শেষ করে উঠতে পেরেছি বলে ক্লিফহ্যাঙ্গারগুলা টের পাই নাই। জেগে উঠা প্রশ্নগুলার উত্তর একবারেই পেয়ে গিয়েছি।
- এইভাবে আনিমে দেখে দেখে অভ্যাস হওয়াতেই এখন ক্লিফহ্যাঙ্গার সহ্য হয় না অনেকের, মনে জমা প্রশ্নের উত্তর ১-২-৩ বছর পর পাব কি না এই সন্দেহে অনেকেরই আনিমেটার দেখার ইচ্ছা কমে যায়।
দুঃখজনক

Farsim Ahmed প্রবল বিরোধিতা করছি।
কোনো আনিমেতে ক্যারেক্টার ডেভেলপমেন্টের জন্য ৩০০ পর্ব লাগে না, ৫০ পর্বের মধ্যে যথেষ্ঠ ভালো কারুকাজ দেখানো যায়। এ জন্য দরকার হচ্ছে সদিচ্ছা, আর এক্সট্রা ফ্যান্সার্ভিস না দেয়া। উদাহরণ: ক্ল্যানাদ, শিকি, আরাকাওয়া অন্দর দ্য ব্রিজ, স্টাইনসগেট, কোড গিস, সাইকো পাস, আই ক্যান গো অন এন্ড অন।
এসেন্কের ব্যাপারে, আসলে কোনো কিছু জনপ্রিয় হয়ে গেলেই তাকে নিয়ে বিরোধিতা করাটা একটা ট্রেন্ড হয়ে গেছে, কিন্তু আমরা যদি এভাবে চিন্তা করি, এসেনকে সম্পর্কে কিছুই জানি না, প্রতিদিন ফবে ঢুকি না, এসেনকে সংক্রান্ত কোনো পোস্ট দেখি না, আর পুরো আনিমেটা দেখে শেষ করি টেলিকাস্ট শেষ হবার পরে, তাহলে কি একে ১০ এর মধ্যে কমপক্ষে ৯ না দিয়ে পারা যায়? সেটা কি অভার্রেতিং হবে?

এসেনকে এত সহজে ভুলে যাবার মত আনিমে না, কিছু কিছু আনিমে ল্যান্ডমার্ক হয়ে থাকে, ফেইট/জিরো, শিকি, স্ল্যাম ডানক, গিন্তামা, যেগুলো সব সময়ই টিকে থাকে, আমার ধারণা এসেন্কেও প্রবলভাবেই টপ আনিমের লড়াইয়ে টিকে থাকবে।

http://www.youtube.com/watch?v=PfzTtJvIpoI

Comments

comments

Leave a Reply