The Battle between 2 Bodhisattva‬: Hashirama vs Netero (Part-7); Naruto & Hunter x Hunter Crossover Fanfiction — Rahat Rubayet

The Battle between 2 Bodhisattva‬: Hashirama vs Netero Part-7
[Naruto & Hunter x Hunter Crossover Fanfiction]

হাশিরামা আর নেতেরোর চোখের সামনেই হিডেন লিফ ধ্বসে পড়তে থাকে। মানুষের ছুটোছুটি, হাহাকার আরর আর্তনাদে চারিদিকের বাতাস ভারী হয়ে উঠে।
গমগম করতে থাকে হাশিরামার কন্ঠও, নেতেরোর জিজ্ঞাসু দৃষ্টির সামনে।
চকিতে নেতেরোর খেয়াল হলো, গ্রাম ধ্বংস হতে থাকলে হাশিরামা আর যাই হোক এভাবে ঠায় দাঁড়িয়ে থাকতো না মোটেই। আর যে যেমনই হোক হাশিরামা নিজের শরীরের বিন্দু পরিমান রক্ত থাকা অব্দি গ্রামের এমন অবস্থা হতে দেবে না।
নেতেরো ভাবতে থাকে, নিশ্চয়ই এটা কোন এক ধরনের ইলিউশান। নিশ্চয়ই কেউ একজন তাকে ম্যানিউপুলেট করে এমন ইলিউশান দেখাচ্ছে।
সেক্ষেত্রে করণীয় কি হতে পারে?
নেতেরো নেন রিলিজ করে।
ধীরে ধীরে সামনের দৃশ্যগুলো মুছে যেতে থাকে। নেতেরোর মুখে স্বভাবসুলভ হাসি ফিরে আসতে থাকে, সেই সাথে অদ্ভুত শিশুসুলভ সারল্য চোখে পড়ার মতন।
আর কেউ না বুঝলেও মাদারা তার শারিংগান দিয়ে ঠিকই ধরতে পারলো যে ফিস্টফাইট বা তাইজুৎসুর পরপরই হাশিরামা গেঞ্জুৎসু কাস্ট করেছিল নেতেরোর উপরে।
নেতেরো দীর্ঘ কয়েক সেকেন্ড দাঁড়িয়ে থাকাবস্থায় গেঞ্জুৎসুর ভেতরেই ছিল।
নেন রিলিজের মাধ্যমে শরীরের যে অংশগুলো দিয়ে হাশিরামা তার চাক্রা দিয়ে নেতেরোকে গেঞ্জুৎসু দেখাচ্ছিল তা সহজেই ব্রেক করে নেতেরো। আদতে নেন আর চাক্রা তো একই জিনিষ।
২ টাই লাইফ এনার্জি।
মাদারা গম্ভীর ভাবে তাকিয়ে থাকে তোবিরামার মত।
এবারে হাশিরামা কি করে তা দেখার অপেক্ষায়।
হাশিরামা দাঁড়িয়ে তাকিয়ে থাকে নেতেরোর চোখের দিকে। এরপর উড রিলিজ করে- ওঁর কেকে গেনকাই। উড রিলিজ করে উডেন গোলেম আর উডেন ড্রাগন সামোন করে।
উডেন গোলেমের ঘাড় আর শরীর পেঁচিয়ে থাকে উডেন ড্রাগন।
খুব অতিকায় না হলেও অনেকটাই বিশাল।
উডেন গোলেম দেখে হাকশেকি কেনোন সামোন করলো যা আদলে এক ধরনের নেন পাপেট।
হাশিরামা তার গোলেম নিয়ে লাফ দিয়ে সামনে যায়। নেতেরোর রিচের সামনে গিয়েই দু হাত দিয়ে জাপটে ধরতে যায়, সাথে সাথেই দেখলো নেতেরো দু হাত তুলে এনেছে বুকের কাছে।
প্রে করছে যেন!
হাশিরামা বুঝতে পারলো, এর নামই এতদিন শুনে এসেছে ওঁ, গ্যানিন বুদ্ধস্তম্ভ।
কিন্তু নেতেরোর বুকের কাছে হাত তোলার কারণ ধরতে পারছে না। দেখে মনে হচ্ছে প্রার্থনা করছে যেন। নাকি শরীরের ব্যালেন্স রক্ষা করছে?
না!!
প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই গোলেমের একটা পাশে প্রচণ্ড আঘাত হানলো নেতেরোর হাকশেকি কেনোনের এক হাত।
হাশিরামা দিশেহারা বোধ করছে না। ধাক্কাটা সামলানের সাথে সাথে সবকিছু বিশ্লেষণ করতে করতেই প্রতিপক্ষের দিকে চোখ রেখেছে। আবার দেখলো নেতেরো তার দু হাত উঁচু করছে বুকের কাছে, প্রার্থনার ভঙ্গিতে।
হাশিরামা জানে যে কোন মুহূর্তে আরেকটা আকস্মিক আঘাত হানবে ভয়ানক দ্রুতগতির ওই বুদ্ধস্তম্ভের হাত।
এবারের আক্রমণটা ডানে থেকে আসবে ভেবেই সিদ্ধান্ত আর প্রস্ততি নিয়ে ফেললো। অপেক্ষায় থাকলো পুঙ্খানুপুঙ্খ সময়ের জন্য।
নেতেরোর দু’ হাত নির্দিষ্ট উচ্চতায় পৌঁছুবার সময়টা খেয়াল আর অনুমান করে নিয়ে উডেন গোলেম সমেত বডি ফ্লিকার দিয়ে অদৃশ্য হয়ে গেলো হাশিরামা।
নেতেরো মুচকি হাসলো শুধু।
একেবারে শেষ সময়ে হাশিরামাও ধরতে পারলো ভুল টা। টাইমিং এ হেরফের হয়ে গেছে।
হয়ে যায় নি আসলে, নেতেরো ইম্প্রোভাইজ করেছে। নেতেরো ভালো করেই জানতো, ২য়বার এটাক হজমের জন্য চুপচাপ বসে থাকবে না হাশিরামা। তাই ইচ্ছে করেই ওকে মুভ করার সুযোগ দিয়ে নিজের এটাককে ইম্প্রোভাইজ করেছে।
হাশিরামা নেতেরোর পিছনেরটায় মাটিতে ল্যান্ড করা মাত্র দেখলো নেতেরো তার দিকে ঘুরে আছে, আর সাথে সাথেই শব্দের গতিতে ছুটে এলো হাকশেকি কেনোনের এক হাত।
গোলেমের গা স্পর্শ করামাত্রই গোলেমের পিঠ বেয়ে উডেন ড্রাগন নেমে এসে পেঁচিয়ে ধরলো বুদ্ধস্তম্ভের হাত, প্রায় কিছুটা বাদেই গোলেমের দু’হাত ওঁ টা ধরে ফেললো।
উপায়ন্তর না দেখে নেতেরো হাকশেকি কেনোনের ৩ হাত ব্যবহার করলো।
এবারে হাশিরামার উডেন গোলেম ড্রাগন কিছুতেই কূলিয়ে উঠতে পারে না। হাশিরামা একবার ভাবলো লাফিং বুদ্ধ দিয়ে হাতগুলোকে নিউট্রালাইজ করা যায় কিনা!
নাহ, পরমুহূর্তে বাদ দিল সে চিন্তা।
সময় এসেছে আঘাত হানার। দু’হাত এক করে মুষ্টি করলো। এরপর তার ভান্ডারের সবথেকে ভয়ংকর অস্ত্র ট্রু সেভেরাল থাউজেন্ড হ্যান্ড সামোন করলো।
বিশাল দৈত্যাকৃতির বুদ্ধস্তম্ভের উপরে দাঁড়িয়ে থাকে হাশিরামা। আর ওদিকে নিচে হাজার হাজার হাতের থেকে ক্রমাগত একের পর আঘাতে নাস্তানাবুদ হয়ে শেষে নেতেরোও তার ৯৯ হ্যান্ড ব্যবহার করতে বাধ্য হয়।
ওদের ব্যাটেল চলতে থাকে অনেক অনেকক্ষণ ধরে।
হান্টার এসোসিয়েশান আর নিঞ্জা ভিলেজের সবাই চুপচাপ দেখে যাচ্ছে ভয়ানক সে লড়াই।

Comments

comments