Koutetsujou no Kabaneri [রিঅ্যাকশন পোস্ট] — Tahsin Faruque Aninda

toty 1

Koutetsujou no Kabaneri (Kabaneri of the Iron Fortress)
Genres: Action, Drama, Fantasy, Horror
Episodes: 12
Source: Original
Studios: Wit Studio

“SnK Clone” নামে পরিচিত এই সিরিজ গত সিজনের শুরুর দিকে বেশ ভাল হাইপ তৈরি করেছিল। এরপর শেষের দিকে এসে কেমন যেন এর আর খোঁজ পাওয়া গেল না তেমন। সব হাইপ পরে গিয়ে শুরু হয়েছে একের পর এক সমালোচনা। অবশ্য ফ্যানবেজও ভালই তৈরি হয়েছে এটার। After all, যেই উপকরণ নিয়ে SnK তৈরি হয়েছিল সেই একই উপকরণ নিয়ে Kabaneri তৈরি হল। প্রশ্ন থাকে, কেমন সফল/ব্যর্থ এই সিরিজ?

প্রোডাকশন টিমে যেমন একগাদা পরিচিত নাম [ডিরেক্টর তেতসুরৌ আরাকি, প্রোডিউসার জর্জ ওয়াদা, মিউজিক কম্পোজার হিরোয়ুকি সাওয়ানো, অ্যানিমেশন স্টুডিও হিসাবে উইট স্টুডিও ইত্যাদি], তেমনই ভাবে গল্পের সাধারণ থিমটাও প্রায় একই রকমের। মানবজাতি হুমকির মুখে, মানবখেকোদের হাত থেকে রক্ষার জন্যে বিশাল দেওয়াল-ঘেরা জায়গার মধ্যে বসবাস করছে তারা, এরই মাঝে গল্পের প্রথম পর্বেই তাদের শহরে মানবখেকোদের আক্রমণ, মৃত্যু হয় শত শত মানুষের। মানবখেকোদের হাতে পরিবার হারানো রক্তগরম নায়ক তাদের নির্মূল করার শপথ নেয়, ভাগ্যের নির্মম পরিহাসে নিজেই হয়ে উঠে মানুষ আর মানবখেকোদের হাইব্রিড, অতএব প্রচন্ড শক্তিশালী হয়ে উঠে। সাথে থাকে ওভারপাওয়ার্ড নায়িকা, যে একাই সব শত্রুদের কাত করে দিতে পারে। ও হ্যাঁ, পুরা গল্পটা হয় এক স্টিম্পাঙ্ক সেটিং-এ।

এত কিছু একই রকম মনে হলেও শেষ পর্যন্ত গল্পটা SnK থেকে অনেক আলাদা হয়ে যায়, বিশেষ করে প্রথম কয়েক পর্ব পরেই গল্পের ধরণ অন্যরকম হয়ে যায়। সমস্যা হল, SnK এর ছায়া থেকে বের হয়ে আসার চেষ্টা করতে না করতেই বাগিয়ে নেয় এই ধরণের গল্পের হাজারখানেক ক্লিশে!

আনিমেটার কিছু ভাল দিক উল্লেখ করছি এখানে:

+ ফাইট কোরিওগ্রাফি
তেতসুরৌ আরাকির সিরিজের ফাইট কোরিওগ্রাফিগুলি অসম্ভব সুন্দর হয় দেখতে। প্রত্যেকটা মারামারির দৃশ্য উপভোগ…

+ মিউজিক
হিরোইউকি সাওয়ানোর মিউজিক, নতুন করে এখানে বলার কিছু নাই। প্রত্যেকটা ফাইটিং মুহুর্তকে ইমোশনাল বানানো তার পক্ষে আসলেই সহজ কাজ।

+ ভিজুয়াল
উইট স্টুডিওর একের পর এক সফল সিরিজ তৈরির কারণে তাদের বাজেট এখন বেশ ভালই হয়। তাই CG ট্রেন সিরিজের একটা বড় ব্যাপার হয়ে দাঁড়ালেও সেটা আলাদাভাবে চোখে পরে না। ব্যাকগ্রাউন্ড আর্ট আর অ্যানিমেশন চমৎকার মানের।

+ নায়কের পাওয়ারাপ / পরের লেভেলে যাওয়া
ক্লিশে ব্যাপার, এরকম একটা কিছু এই ধরণের গল্পে হয় এটা জানা থাকার পরেও আগ্রহ থাকে দেখার জন্যে। আর সেই মুহুর্তটা খুবই ভাল লেগেছে আসল…

এবার থাকছে সিরিজটা নিয়ে অপছন্দের ব্যাপারগুলি:

— নির্বোধ জনগণ, নির্বোধ সব ডিসিশন
ব্যাপারটা দেখে এমন মনে হয়েছে যে, শুধু গল্পে অতিনাটকীয়তা আনতে কিংবা SnK ভাব ধরে রেখে massacre দেখানো দরকার বলেই যেন জনগণের নির্বোধ সব ডিসিশন নিয়ে যাওয়া একের পর এক। সিরিজে যত মানুষ মরতে দেখিয়েছে, তার ৮০% হয়েছে সেই জগতের মানুষের IQ লেভেল ৫০-এর নিচে থাকার কারণে।

— ইমোশনাল ব্যাপার আনার ক্লিশে চেষ্টা, এবং একটুও মন খারাপ করতে না পারা
Shingeki no Kyojin-এর একটা বড় দিক ছিল সেখানে চেনা জানা বা অজ্ঞাত সব চরিত্রের মৃত্যুও মন খারাপ করে দিয়ে যেত। এর কারণ ছিল ভাল ক্যারেক্টার বিল্ডাপ, যা এমনকি দুই তিন দৃশ্যে উপস্থিত থাকার পরেও তাদের মৃত্যু কষ্ট দিয়ে যেত। এখানে একইরকমের কাজ করার চেষ্টা হয়েছে, এবং বেশ বাজেভাবে ব্যর্থ হয়েছে।

— মানবজাতিকে ধ্বংস করে ফেলার মত থ্রেট, যেটা আসলে তেমন কোন থ্রেটই হয় নাই
SnKএর একটা বড় ব্যাপার ছিল যে টাইটানরা আসলেই ভীতিকর ছিল এই অর্থে যে, সেনাবাহিনীর অনেকদিনের ট্রেইন্ড কোন সেনাও যেকোন সময়ে টাইটানদের হাতে মারা পরতে পারে। ঐ দুনিয়ায় টাইটানদের সাথে বেঁচে থাকতে হলে হয় খুব বেশি ভাল ভাগ্য থাকা দরকার, নাইলে নামের শেষে Ackerman থাকতে হবে। আর এই Kabane-এর দুনিয়াতে একমাত্র স্বাভাবিক জনগণ বাদে সবাই একেকজন ২০-৩০টা করে কাবানে মেরে ফেলা কোন ব্যাপারই না। ট্রেইন্ড সোলজার হলে তো কথাই নাই! একমাত্র বেকুব হবার কারণেই মানবজাতি এই দুনিয়ায় ধ্বংসের মুখে।

— মেইন ভিলেইন
এরকম uninspiring ভিলেইন অনেক বছর দেখি নাই।

— Asspull
এগুলার কথা আর ডিটেইলসে বলতে ইচ্ছা করছে না। ভাল লাগে নাই সেই অংশগুলি।

— গল্পের প্রয়োজন, তাই সবাই বেকুব
আবারও এই টপিক আনলাম। কেন? — প্রথম পর্বের শুরুর আর শেষের দিকের দুইটা দৃশ্য [নিচের ছবি লক্ষ্য করুন] খেয়াল করলেই বুঝবেন কেন বলছি।

Toty
যদি বুঝে উঠতে না পারেন, তাহলে বলে রাখি:
সকালে যেই সময়ে দৃষ্টিসীমায় সমস্যা হয় না, তখন বাইরে থেকে আসা ট্রেইন ঢুকবার আগে ট্রেইন থামিয়ে দেওয়া হয়, সিকিউরিটির জন্যে চেক করা হয় কেউ ইনফেক্টেড কিনা। আর পর্বের শেষের দিকে এসে রাত্রবেলায় কী হল? — সবাইকে মারা দরকার, তাই ট্রেইন দেখেই আগে থেকে ব্রিজ নামিয়ে দেওয়া হয়। কই গেল সেই চেকিং? কই গেল সিকিউরিটির কারণে ট্রেইন থামিয়ে তল্লাশি করা??
এটা হল খুবই লো-কোয়ালিটির গল্প লিখন।

Bittersweet এন্ডিং এই ভীতিকর দুনিয়ার গল্পে স্বস্তির ইতি টেনেছে বলে কিছুটা ভাল লেগেছে। কিন্তু সব মিলিয়ে গল্পের কিছুদূর যাবার পরেই যে আগ্রহের পারদ নিচের দিকে নামতে শুরু করে, সেটা আর উপরে তুলে আনতে পারে নাই।

তবে এটা যে কাউকে দেখতে বারণ করছি তা না। Honestly speaking, SnK ripoff কিনা তাতে যায় আসে না আমার, জিনিস ভাল হলে সবই ভাল। সমস্যা হচ্ছে, জিনিসটা তেমন ভাল হয় নাই। TOTY না হলেও, AOTY হবার প্রশ্নই উঠে না।

তবে পুরাটাই আমার নিজস্ব মতামত। অনেকের কাছে এটা হয়তো এই বছরের সেরা আনিমে। তাই নিজে দেখুন কিছুদূর, ভাল লাগলে কন্টিনিউ করতে থাকেন।

Kabaneri of the Iron Fortress [রিএকশন/রিভিউ] — Amor Asad

Kabaneri

আসুন, Kabaneri of the Iron Fortress কে কয়েক বাক্যে প্রকাশ করি —
অভিমান জমিয়ে রাখা, চুলে আলতা মাখা, ফাদার-কমপ্লেক্সে ভোগা ভালোবাসাহীন তরুণ, যে পোস্ট অ্যাপাক্যালিপ্টিক যুগের ডারউইন হতে চায়;
ডারউইন তরুণকে কাঁচকলা দেখাতে বেদুইনদের উত্তরসূরি-স্টাইলিশ-নার্ড কিশোরের ওয়ান ম্যান অ্যর,
এনিমখোরের ললিখোরদের উস্কে দিতে মারকুটে পিচ্চি বালিকা, যার আবার ব্রাদার কমপ্লেক্স আছে,
সুন্দরী প্রিন্সেস আর তাঁর লজ্জ্বাবতী বডিগার্ড,
টাইটানদের উত্তরসূরি লটস অফ লাভাখোর মরা মানুষ, ব্যাডঅ্যাস ট্রেইন।

মানে, হেটাররা এমনটাই ভাবে। আমি ভাবিনা। কাবানেরি অফ দ্য আয়রন ফোর্ট্রেস আমার দারুণ ভাল্লাগছে। এইতো ওপেনিং সংটা ডাউনলোড করে রিপিট দিয়ে শুনছি। পিসি আর ফোনের ওয়ালপেপার চেঞ্জাইলাইছি। স্বয়নে স্বপনে ইউকিনাকে দেখতেছি। ফ্যান না হইলে এই কাজ কেউ করে?

এবারে Kabaneri of the Iron Fortress এর প্লট কয়েক বাক্যে প্রকাশ করি —
জোম্বি ভাইরাস অ্যাপোক্যালিপ্স,
মানব সভ্যতা বিলুপ্তির পথে,
সারভাইভাররা নিজস্ব অর্ডার বানিয়ে নিয়েছে,
কিন্তু না — আশার বাত্তি নিভে নাই, ডালমে কুছ কালা হ্যায়, মিশ্র একদল শক্তিশালী আদমি আছে।
তাগো ভীতর একজন আবার এক্সট্রা ব্যতিক্রম। দুনিয়ার যাবতীয় দায়িত্ব তেনার ঘাড়ে নিয়ে বাকীদের তিনি দায়মুক্তি দ্যান।

অ্যাগেইন, এসব হেটারদের কথা। আমার না।
===
2013 সালে একটা সাই-ফাই মুভি রিলিজ পেয়েছিলো, Snowpiercer. ওই বছরের দারুণ ফিল্ম হলেও তেমন সাড়া পায়নি। স্নোপিয়ার্সারের গল্পটাও ট্রেনে। মানব সভ্যতা চিরস্থায়ী শীতকালের বশবর্তী, পৃথিবী বাসের অনুপযোগী। সারভাইভাররা সবাই একটা জায়ান্ট ট্রেনে উঠে বছরের পর বছর ঘুরতে থাকে। যদিও ওই মুভির বাকি সব গল্প আলাদা, কাবানেরি দেখতে গিয়ে প্রথমেই ওটার কথা মনে পড়েছিলো।

এরকম দ্রুতলয়ের কিছু দেখতে আলাদারকম ভাল্লাগে। অনেকদিন পর কোন অ্যানিমে এক বসায় শেষ করেছি। তাই হয়তোবা শেষের দিকে গোঁজামিল বা রাশড হবার পপুলার দাবীর যথাযথতা নিয়ে সন্দেহ আছে। আমার কাছে পুরো অ্যানিমেই সমান ভালো লেগেছে। সত্যি বলতে, ক্লিশে গুলো বাদ দিলে কাবানেরি দারুণ উপভোগ্য। চমৎকার অ্যানিমেশন, উত্তেজনাকর অ্যাকশন সিকোয়েন্স, সেই সাথে রক্ত গরম করা মিউজিক স্কোর। বিশেষ করে গল্পকথনের সাথে ব্যাকগ্রাউন্ড স্কোরের এমন সামঞ্জ্যতা সহসাই দেখা যায় না। শেষবার এই টালমাতাল অনুভূতি পেয়েছিলাম ম্যাড ম্যাক্স ফিউরি রোডে। কাবানেরির ওএসটি নামিয়েছি, কিন্তু কেবল OP টাই শোনা হয় কেন যেন।
সেই সাথে সিনেম্যাটোগ্রাফি ছিলো বোনাস, ফাঁকা দুনিয়ার মাঝখান দিয়ে ট্রেইন ছোঁটার, বিশেষ করে এপিসোড শেষে স্টেশন থেকে কোন মতে জান নিয়ে বের হয়ে যাওয়ার অংশটুকু যেন অনেকটাই পোয়েটিক – দেয়ার গোজ দ্য লাস্ট হোপ অফ সারভাইভাল।

কাবানেরি পছন্দ হবার আরেকটা কারণ হচ্ছে, আডিওলোজির কনফ্লিক্ট দেখলে ভাল্লাগে, যতই পুরনো হোক না কেন। আমাতরি বিবার দর্শনটা ফেলে দিতে পারিনি। বিভিন্ন সিচুয়েশনে তাঁর ভাবনার ধরণই বেশী গ্রহণযোগ্য মনে হয়। আবার শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ইকোমা নিজ অবস্থানে ঠিক আছে, ইকোমা সেটা ইঁদুরের মতো চিঁ চিঁ করে বললেও।

Attack on Titan এর সাথে Kabaneri of the Iron Fortress এর মিল আছে, তবে অমিলই বেশী। এটা ওটার ছোট ভার্সন, ছোট ভাই, সেকেন্ড ভার্সন – ইত্যাদি বক্তব্য ভিত্তিহীন মনে হয়। AOT থেকে Kabaneri কোন দিক দিয়েই লেসার অ্যানিমে না, বরঞ্চ কিছু দিক দিয়ে এগিয়েই থাকবে।

আমার রেটিং ৮/১০