Sakib’s Hidden Gems – Episode #31

আনিমে: Kareshi Kanojo no Jijou (Kare Kano, His and Her Circumstances)

জানরা: শৌজো, রোমান্স, কমেডি, স্কুল, স্লাইস অফ লাইফ
এপিসোড সংখ্যা: ২৬
MAL লিঙ্ক: https://myanimelist.net/anime/145/Kareshi_Kanojo_no_Jijou
 
 
গল্পের কেন্দ্রবিন্দু হল হাইস্কুলের প্রথম বর্ষের ছাত্রী ইউকিনো মিয়াযাওয়া। একদম ছোটবেলা থেকেই ওর শখ হল সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করা আর সবার প্রশংসা কুড়ানো। এর জন্য সে দিনরাত খেটে একই সাথে লেখাপড়া ও সিলেবাসের বাইরে অন্যান্য কাজে নিজেকে গড়ে তুলেছে। সে স্কুলের সবার সামনে একজন আদর্শ ছাত্রীর ইমেজ রক্ষা করে চলে, আর বাসায় আসলে তা ঝেড়ে ফেলে। তো এইসময় হঠাত করে ওর সামনে উপস্থিত হয় আরেকজন “আদর্শ ছাত্র” আরিমা সৌইচিরৌ। আরিমার কাছে পরীক্ষায় প্রথম স্থান হারিয়ে ইউকিনো রেগেমেগে আরও বেশি করে পড়াশুনো করতে থাকে ও পরের পরীক্ষায় ঠিকই প্রথম স্থান দখল করে। কিন্তু তার প্রত্যাশার বিপরীতে আরিমা হাসিমুখে তাকে অভিনন্দন জানায়। এভাবেই ইউকিনোর কাছে আরিমা বেশ কৌতূহলের বস্তু হয়ে ওঠে। কিছু সময় পর ঘটে আরেকটি ঘটনা – আরিমা ইউকিনোর কাছে কনফেস করে বসে! আবার ইউকিনোর অসাবধানতায় আরিমা ওর আসল রুপটিরও সন্ধান পেয়ে যায়। এরপর ইউকিনো কী করবে? আরিমা আর ইউকিনোর মধ্যে কি ট্যালেন্ট ছাড়াও আরও অনেক দিক দিয়ে মিল আছে? ইউকিনো কি পারবে নিজেকে বদলাতে?
 
গল্পটি প্রচলিত রমকম গুলির চাইতে একদম আলাদা। ঐ বয়সে প্রেমে পড়লে একটি মেয়ে বা ছেলের মধ্যে মানসিক দিক দিয়ে যা যা চলে, তা নিখুঁতভাবে ও সাহসিকতার সাথে ফুটে উঠেছে। খুব ভালো কিছু সংলাপ, নিপুণ চরিত্রায়ন, বাস্তবসম্মত লেখনী, দারুণ পেসিং, ও দারুণ সব সাইড ক্যারাকটার আর্ক এই আনিমেটিকে রমকম হিসেবে (প্রায়) পূর্ণতা দিয়েছে। দারুণ এন্ডিং গান, খুব সুন্দর ওএসটির ব্যবহার ও অনন্য উপস্থাপনা আনিমেটিকে প্রানবন্ত করে তুলেছে। আর অবশ্যই এর পিছনে কিছুটা হলেও বিখ্যাত পরিচালক হিদেয়াকি আন্নোর (ইভাঞ্জেলিওন) অবদান আছে।
 
আনিমেটির কম রেটিং-এর প্রধান (নাকি একমাত্র?) কারণ হল- আনিমেটিতে খুব বেশি পরিমাণে রিক্যাপ এপিসোড, ফিলার, ও উদ্ভট কিছু জিনিসপাতি আছে। আর মাঝপথে আনিমেটি শেষ হয়ে গেছে। কিন্তু এইসব ত্রুটি সত্ত্বেও অসাধারণ, অ-সা-ধা-রণ এই আনিমেটি সব্বাই দেখবেন কিন্তু। আর সামনের ঘটনা জানতে মাঙ্গা তো আছেই।
 

Sakib’s Hidden Gems – Episode #30

আনিমে: Wangan Midnight

জানরা: একশন, মোটরস্পোর্টস, সেইনেন
এপিসোড সংখ্যা: ২৬
MAL লিঙ্ক: https://myanimelist.net/anime/2608/Wangan_Midnight
 
হাইস্কুলের শেষ বর্ষের ছাত্র আসাকুরা আকিওর গাড়ির দিকে খুব ঝোঁক। পড়াশুনায় মন না দিয়ে সারাদিন পার্ট টাইম কাজ করে ওর গাড়ির পিছনে খরচ করে, আর রাতের বেলায় শহরের ওয়ানগান নামের হাইওয়েতে হাই স্পিডে গাড়ি চালিয়ে বেড়ায়। গতির নেশায় উন্মত্ত আকিওর লক্ষ্য হল তার চাইতেও ফাস্ট ড্রাইভার, ওয়ানগানের সম্রাটখ্যাত শিমা তাতসুইয়াকে রেসিং এ হারানো। তো একদিন হঠাত সে খবর পায় যে, একটা স্যাল্ভেজ ইয়ার্ডে একটা Nissan S30Z Fairlady গাড়ি পড়ে আছে। সে গাড়িটা দেখতে যায়। প্রথম দেখাতেই ওর গাড়িটাকে ভালো লেগে যায়। গাড়িটার আবার নাকি পুরান ইতিহাস আছে। এর আগে বেশ কয়েকজন ড্রাইভার গাড়িটা চালাতে গিয়ে এক্সিডেন্ট করেছে, কিন্তু গাড়ির তেমন ক্ষতি হয়নি। এজন্য গাড়িটার নাম হয়ে গিয়েছে “শয়তান Z”। কিন্তু গাড়িটা চালিয়েই আকিও নির্দ্বিধায় সেটা কিনে ফেলে। এখন ও কি পারবে গাড়িটার বদনাম ঘোচাতে? সে কি পারবে ওয়ানগানের সম্রাট হতে?
 
এই আনিমের সাথে Initial D এর অনেক সাদৃশ্য থাকায় অনিচ্ছাসত্তেও তুলনা এসে পড়ে। ঐ আনিমের মত এটাতেও গাড়ীগুলোকেই আকর্ষণীয় করে দেখান হয়েছে। ক্যারাকটার ডিজাইনগুলো কেমন কেমন। ভিজুয়ালও তেমন আহামরি কিছু না। তবে গল্প বেশ জমাটি। গল্পের স্পিড ভালো, বেশ ভালো রাইভালরি আছে। ধুম ধারাক্কা ওএসটি আছে। তবে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য দিক হল – Initial D তে ড্রাইভারের টেকনিকের উপর ফোকাসটা যেমন বেশি, এইটাতে গাড়ির Specification আর টিউনিং এর উপর ফোকাসটা ততই বেশি। আর প্রফেসনাল রেসিং এর জগতে এইটাই আসলে বেশি বাস্তবসম্মত। এতে একই সাথে রেসিং আনিমে হিসাবে এর মান যেমন বেড়েছে, তেমনি আনিমেটার টার্গেট অডিয়েন্স ও বোধহয় কিছুটা কমে গিয়েছে। কারন গাড়ি নিয়ে আগ্রহ না থাকলে এই আনিমে অত একটা বোধহয় উপভোগ করা যায় না।
 
এই টাইপের আনিমেতে আগ্রহী যারা, তারা রেসিং নিয়ে বানানো অন্যতম সেরা এই আনিমেটি চেখে দেখতে পারেন।
 

Sakib’s Hidden Gems – Episode #29

আনিমে: 𝘠𝘰𝘮𝘪𝘨𝘢𝘦𝘳𝘶 𝘚𝘰𝘳𝘢: 𝘙𝘦𝘴𝘤𝘶𝘦 𝘞𝘪𝘯𝘨𝘴

জানরা: মিলিটারি, ড্রামা, সেইনেন, স্লাইস অফ লাইফ
এপিসোড সংখ্যা: ১২ + ১
MAL লিঙ্ক: https://myanimelist.net/anime/798/Yomigaeru_Sora__Rescue_Wings
 
“ট্রুথ ইজ স্ট্রেঞ্জার দ্যান ফিকশন” – আপনি কী এই প্রচলিত কথাটিতে বিশ্বাসী? আপনি কী রিয়ালিস্টিক আনিমের আশায় বসে থাকেন, যেগুলোতে চরিত্রদের জীবন-মরণ সমস্যার সম্মুখীন হতে হয় আর কঠিন কিছু সিদ্ধান্ত নিতে হয়? জীবনের কঠোর বাস্তবতার সাথে পরিচয় করানোর মত আনিমেগুলি কী আপনার পছন্দের? তাইলে এটি এমন একটি আনিমে, যা আপনি একেবারে কোনভাবেই মিস করতে পারবেন না!
 
জাপানি প্রতিরক্ষা বাহিনীর (জে এস ডি এফ) এয়ার রেস্কিউ বিভাগের কার্যকলাপ নিয়ে এই আনিমের গল্প। গল্পের মূল চরিত্র কাযুহিরো উচিদার শৈশব স্বপ্ন ছিল ফাইটার পাইলট হবার (শিশুকালের বেশ কমন কিছু লক্ষ্যগুলির একটি, তাইনা?)। কিন্তু এই লক্ষ্য অর্জনে ব্যর্থ হওয়ার পর তাকে রেস্কিউ বিভাগের হেলিকপ্টার চালকের কাজ নিয়েই সন্তুষ্ট হতে হয়। সে বেশ অখুশিমনে সেখানে জয়েন করে। কিন্তু অচিরেই নিজের কাজের মর্যাদা সম্পর্কে তার ধারনা পালটে যায়। কাকে রেখে কাকে বাঁচাই – এই ধরণের কঠোর কিছু সিদ্ধান্তের মুখোমুখি হয় সে। আর ধীরে ধীরে একজন দায়িত্বশীল যুবক হিসেবে নিজেকে গড়ে তোলে সে।
 
আনিমেটির আর্ট, সাঊন্ড, আর এনিমেশন – সবই এর অসাধারন গল্পের মর্যাদা রাখতে পেরেছে। এয়ারক্রাফটগুলি ডিজাইন করতে সিজিয়াই ব্যবহার করা হলেও কোয়ালিটি বেশ ভাল।
 
মিলিটারি কথাটা শুনলে আমাদের মানসপটে সচরাচর সশস্ত্র যুদ্ধের ছবি ভেসে ওঠে। কিন্তু যুদ্ধ ও প্রতিরক্ষা ছাড়াও সেনাবাহিনীর আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব হল দুর্যোগে বা কোন অন্য বিপদ থেকে মানুষকে উদ্ধার করা। তুলনামূলক লোকচক্ষুর আড়ালে থাকা এই বিষয়টি উঠে এসেছে এই আনিমেটিতে।
 
একটি স্লাইস অফ লাইফ আনিমে যে কত ভাল মানের হতে পারে – এই আনিমেটি তার একটি সুন্দর উদাহরণ। তাই এই তুলনামূলক ছোট্ট আনিমেটি ট্রাই করে দেখতে পারেন।
 

Sakib’s Hidden Gems – Episode #28

আনিমে: 𝘝𝘦𝘳𝘴𝘢𝘪𝘭𝘭𝘦𝘴 𝘯𝘰 𝘉𝘢𝘳𝘢 (𝘛𝘩𝘦 𝘙𝘰𝘴𝘦 𝘰𝘧 𝘝𝘦𝘳𝘴𝘢𝘪𝘭𝘭𝘦𝘴)

জানরা: শৌজো, ড্রামা, হিস্টোরিকাল
এপিসোড সংখ্যা: ৪০
MAL লিঙ্ক: https://myanimelist.net/anime/338/Versailles_no_Bara
 
ফ্রান্স, ১৭৫৫ সাল। রাজা ও রানির রক্ষীবাহিনীর প্রধানের ঘরে জন্ম নিল ফুটফুটে এক কন্যাসন্তান। কিন্তু কন্যা হওয়ায় অসন্তুষ্ট বাবা সিদ্ধান্ত নিলেন, একে ছেলের মত মানুষ করবেন। তাই ওর নাম দিলেন অস্কার। অস্কার নিজেও ছেলেদের মত পোশাক পরে, আর অসিচালনায় পারদর্শী হয়ে ওঠে। এভাবে কেটে যায় ১৪টি বছর। দৃশ্যপটে আবির্ভাব ঘটে গল্পের দ্বিতীয় মূল চরিত্রের – অস্ট্রিয়ার রাজকুমারী ও ফ্রান্সের যুবরাজের হবুপত্নী ম্যারী আঁতোয়ানেতের। অস্কারের অসিচালনার কথা শুনে ফ্রান্সের রাজা ওকে আঁতোয়ানেতের দেহরক্ষী হিসেবে নিযুক্ত করেন। দুই জগতের দুই কিশোরী এভাবেই একে অপরের কথা জানতে পায়, ও তাদের জীবনটাই বদলে যায়। তারপর কাহিনী এগুতে থাকে আর মাত্র বিশ বছর পর ঘটা ফরাসি বিদ্রোহের দিকে।
 
বেশ পুরনো এই আনিমেটি খুব যত্নের সাথে বানানো হয়েছে। ভিজুয়াল আর ক্যারেক্টার ডিজাইন তখনকার শৌজো আনিমের মত, বেশ ভাল লেগে যায়। সুন্দর মিউজিকের ব্যবহার আছে। ওপেনিং গানটা ভাল। কাহিনী বেশ হৃদয়বিদারক গোছের। তবে এর ঐতিহাসিক দিকটাই সবচেয়ে বেশি উল্লেখযোগ্য। আনিমেটিতে তৎকালীন ইউরোপের অভিজাত সমাজ, রাজপরিবার, ও সাধারণ সমাজের আর্থসামাজিক ও রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। আনিমেটি দেখে ম্যারী আঁতোয়ানেত সম্পর্কে প্রচলিত ধারনায় কিছু পরিবর্তন ঘটা অস্বাভাবিক কিছু হবে না।
 
একটি হিস্টোরিকাল ক্লাসিক আনিমের স্বাদ পেতে চাইলে ট্রাই করে দেখুন না।
 

Sakib’s Hidden Gems – Episode #27

আনিমে: 𝓡𝓸𝓶𝓮𝓸 𝓷𝓸 𝓐𝓸𝓲 𝓢𝓸𝓻𝓪 (𝓡𝓸𝓶𝓮𝓸’𝓼 𝓑𝓵𝓾𝓮 𝓢𝓴𝓲𝓮𝓼, 𝓡𝓸𝓶𝓮𝓸 𝓪𝓷𝓭 𝓽𝓱𝓮 𝓑𝓵𝓪𝓬𝓴 𝓑𝓻𝓸𝓽𝓱𝓮𝓻𝓼)

জানরা: এডভেঞ্চার, স্লাইস অফ লাইফ, ড্রামা, হিস্টোরিকাল
এপিসোড সংখ্যা: ৩৩
MAL লিঙ্ক: https://myanimelist.net/anime/2559/Romeo_no_Aoi_Sora
 
আনিমেটি বিখ্যাত সুইডিশ উপন্যাস “Die schwarzen Brüder (“The Black Brothers)” এর আলোকে বানানো হয়েছে। গল্পটি ঊনিশ শতকের, স্থান হচ্ছে ইতালির সীমান্তবর্তী সুইজারল্যান্ডের ছোট একটি গ্রাম। সেই গ্রামে বাবা, মা, ও ছোট দুইটি ভাইকে নিয়ে থাকত দশ বছরের ছেলে রোমিও। অভাব-অনটন ও ধারদেনার সংসারে রোমিও নিজের সাধ্যমত চেষ্টা করত বাবা-মাকে সাহায্য করে ওদের সবার মুখে হাসি ফোটাতে। কিন্তু একদিন তাদের গ্রামে যমদূতের মত ও শয়তানি বুদ্ধিতে ভরা এক দাসব্যবসায়ীর আগমন হল। লোকটার চক্রান্তে রোমিও অর্থের বিনিময়ে তার সাথে ইতালির মিলান শহরে চিমনি পরিষ্কারকের কাজ করতে যেতে বাধ্য হল। পথে সে পেল তার জীবনের শ্রেষ্ঠ বন্ধু আলফ্রেডোকে। মিলানে গিয়ে নানা লোকের অত্যাচার যেমন তাকে সইতে হল, তেমনি জুটে গেল তারই মত চিমনি পরিষ্কারক কিছু বন্ধু। তাদের সাথে রোমিও তার এক নতুন জীবন শুরু করল।
 
আনিমেটি জুড়ে একটি শান্ত, সুন্দর স্নিগ্ধতা আছে। আনিমেটি ধীরগতির, ওএসটিগুলি বেশ ভাল। হিস্টোরিকাল আনিমে হিসেবেও বেশ সার্থক এটি; তৎকালীন ইউরোপের একটি স্পষ্ট খন্ডচিত্র পাওয়া যায়। তবে গল্পের আবেগঘন দিকটাই যেন সবচেয়ে বেশি মনে থাকে ও মনে গাঁথে। আনিমেটিতে হাসি-খুশির কিছু মোমেন্ট থাকলেও মূলত এটি বেশ দুঃখের কাহিনী। আপনার চোখে পানি আসাটা অস্বাভাবিক কিছু হবে না।
 
পুরনো ভিজুয়ালে ও বিয়োগাত্মক কাহিনীতে আপত্তি না থাকলে দেখে ফেলুন।
 

Sakib’s Hidden Gems – Episode #26

আনিমে: 𝘖𝘵𝘰𝘯𝘢 𝘑𝘰𝘴𝘩𝘪 𝘯𝘰 𝘈𝘯𝘪𝘮𝘦 𝘛𝘪𝘮𝘦

জানরা: জোসেই, স্লাইস অফ লাইফ, ড্রামা, রোমান্স
এপিসোড সংখ্যা:
MAL লিঙ্ক:  https://myanimelist.net/anime/10178/Otona_Joshi_no_Anime_Time
 
আনিমেটির প্রতিটি এপিসোড হল একটি করে ছোটগল্পের এডাপটেসন। প্রতিটি গল্পই পুরস্কারপ্রাপ্ত। একেকটির থিম একেকরকম হলেও প্রতিটি গল্পেরই কেন্দ্রে থাকে একেকজন প্রাপ্তবয়স্কা নারী। ওদের জীবনের কিছু সুখ-দুঃখের ও রোমান্টিক মুহূর্তের কথা অত্যন্ত নিপুণতার সাথে বলা হয়। আনিমেটির ঘটনাপ্রবাহ অত্যন্ত বাস্তব; মনে হবে যেন কোন উঁচুমানের টিভি ড্রামা দেখছেন।
 
আনিমেটির ভিজুয়াল মোটামুটি। এছাড়া সবকিছুই অসাধারণ। মিউজিকের ব্যবহার অতুলনীয়, আমার দেখা অন্যতম সেরা। চরিত্রগুলি একেকটি যেন বাস্তব জীবন থেকে উঠে এসেছে। ওদের হাসি-কান্নার মুহূর্তগুলি দর্শকের মনে সহজেই নানা অনুভূতির সঞ্চার করে। আর প্রধান চরিত্রের স্বগতোক্তিগুলি (monologue) খেয়াল করবেন, নিশ্চয়ই আপনার মনে দাগ কাটবে।
 
একেবারেই ছোট সাইজের জিনিস। দেখেই ফেলুন না। পস্তাবেন না।
 

Sakib’s Hidden Gems – Episode #25

আনিমে: Kemono no Souja Erin (The Beast Player Erin)

জানরা: ফ্যান্টাসি, স্লাইস অফ লাইফ, ড্রামা
এপিসোড সংখ্যা: ৫০
MAL লিঙ্ক: https://myanimelist.net/anime/5420/Kemono_no_Souja_Erin
 
গল্পটি হচ্ছে মূলত মধ্যযুগের আদলে নির্মিত এক ফ্যান্টাসি জগতে এরিন নামের একটি মেয়ের জীবনকাহিনী। জন্মের আগেই বাবাকে হারানো ছোট্ট এরিনের জীবনের শুরু হয় ওর মায়ের স্নেহে। ছোটকালে ও থাকত একটি গ্রামে, যেখানে সবাই তোউদা নামক এক প্রকার বিরাটকায় জীবের দেখভাল করে থাকে। তখন থেকেই অত্যন্ত কৌতূহলী ও বুদ্ধিমতী মেয়ে এরিন ওর মায়ের কাছ থেকে ওর জগত সম্পর্কে বহু শিক্ষা পায়। এরপর গল্প যত আগাতে থাকে, এরিনের জীবনে ততই নানা ঘাত-প্রতিঘাত আসতে থাকে। কিন্তু এরিন সকল বাধা অতিক্রম করে ওর অভীষ্ট লক্ষ্যে এগিয়ে চলে।
 
আনিমেটির যেই দিকটি সবচেয়ে মনকাড়া সেটি হলো এর ওয়ার্ল্ড বিল্ডিং। সময় নিয়ে, যত্নের সাথে এরিনের জগতের খুঁটিনাটি সবকিছু চোখের সামনে নিয়ে আসা হয়েছে। আনিমেটি দেখে সহজেই ঐ জগতের পরিবেশ, সংস্কৃতি, আর্থসামাজিক ও রাজনৈতিক অবস্থা, মানুষের মনোভাব ও বিদ্যাবুদ্ধির পরিধি সম্পর্কে বুঝা যায়। আর তার সাথে রয়েছে খুব সুন্দরভাবে ফুটিয়ে তোলা এক একটি চরিত্র। এরিন ও ওর সঙ্গীসাথীদের মনোভাব সহজেই বুঝা যায়, ওদের বাস্তব চরিত্রের মতই মনে হয়। চরিত্রগুলি বেশ কন্সিস্টেন্ট আচরণ প্রদর্শন করে থাকে। আর ওদের সুখ-দুঃখের মুহূর্তগুলি অনায়াসেই অন্তর দিয়ে অনুধাবন করা যায়।
 
আনিমেটির ভিজুয়াল আর এনিমেশন মোটামুটি ভাল। বেশ কিছু সুন্দর ওএসটি আছে। ওপেনিং আর এন্ডিং গানদুটি খুব ভাল। তবে সব কিছুকে ছাপিয়ে গেছে আনিমেটির ওয়ার্ল্ড বিল্ডিং, স্টোরিটেলিং, আর চরিত্রায়ন।
 
কিছুটা ধীরলয়ের গল্পে আপত্তি না থাকলে অবশ্যই অবশ্যই দেখবেন। আর এর সাথে একই লেখিকার “Seirei no Moribito” দেখবার প্রস্তাব রইল। এটি নিয়ে এক পূর্ববর্তী পর্বে লিখেছি।
 

Sakib’s Hidden Gems – Episode #24

আনিমে: Joker Game

জানরা: হিস্টোরিকাল, মিলিটারি, ড্রামা
এপিসোড সংখ্যা: ১২
MAL লিঙ্ক: https://myanimelist.net/anime/31405/Joker_Game
 
সময়টা ১৯৩৭ সাল, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ হব-হব। জাপানি সাম্রাজ্যের স্বার্থ রক্ষার্থে লেফটেন্যান্ট ইউকি নামক এক রহস্যময় ব্যক্তি নিজ উদ্যোগে D Agency নামক এক স্পাই ট্রেনিং প্রতিষ্ঠান খুলেছেন। তার আন্ডারে তিনি নিয়েছেন বহু কঠিন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ আটজনকে। প্রতিষ্ঠানটির অনন্য সাফল্যে ঈর্ষান্বিত হয়ে এক মিলিটারি উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা একজনকে পাঠান ডি এজেন্সির সাথে লিয়াজোঁ হিসেবে কাজ করতে। একই সাথে একটি “অসম্ভব” মিশনে ওদের নিয়োগ দেন। ঐ লিয়াজোঁ (নাম সাকুমা) স্পাইদের সম্পর্কে নিচু ধারণা পোষণ করে। কিন্তু ঐ মিশনে সক্রিয়ভাবে অংশ নিয়ে নিজের চোখে ওদের দক্ষতা বুঝতে পেরে সাকুমার ভুল ভাঙে। গল্পের শুরুটা এইভাবেই। তারপর একেকটি এপিসোডে ডি এজেন্সির ভিন্ন ভিন্ন সদস্যরা একেকটি গুপ্ত মিশনে অংশ নেয়।
 
আনিমেটির ভিজুয়াল খুবই দৃষ্টিনন্দন। ক্যারাক্টার ডিজাইনে আছে বাস্তবের ছোঁয়া। ওএসটির ব্যবহারও ঠিকঠাক। গল্পটিতে আপনি তৎকালীন জাপান ও বৈশ্বিক রাজনৈতিক পরিস্থিতির একটি স্পষ্ট খণ্ডচিত্র পাবেন। তার সাথে গুপ্তচরবৃত্তির টানটান উত্তেজনা তো থাকছেই।
 
আনিমেটির একটি ত্রুটি হলো প্লট প্রগ্রেসনের অভাব। ডি এজেন্সি আর ইউকি সম্পর্কে গল্পে বেশ একটি রহস্যময় আবহ তৈরি করা হয়েছে, কিন্তু যৎসামান্য তথ্যই উদঘাটিত হয়েছে। এই ব্যাপারে আপত্তি না থাকলে আনিমেটি অবশ্যই দেখার মত।
 

Sakib’s Hidden Gems – Episode #23

আনিমে: Ima, Soko ni Iru Boku (Now and Then, Here and There)

জানরা: অ্যাডভেঞ্চার, ফ্যান্টাসি, সাই-ফাই, মিলিটারি, ড্রামা
এপিসোড সংখ্যা: ১৩
MAL লিঙ্ক: https://myanimelist.net/anime/160/Ima_Soko_ni_Iru_Boku
 
গল্পের নায়ক মাতসুতানি শুউ হাসিখুশি, প্রাণবন্ত, ও অত্যন্ত অপটিমিস্টিক একটি ছেলে। একদিন সে লালা রু নামের এক অদ্ভুত ও রহস্যময়ী মেয়ের দেখা পায়। এর কিছু পরেই এক তীব্র আলোর ঝলকানির সাথে শুউ নিজেকে আবিষ্কার করে লালা রু এর সাথে এক সম্পূর্ণ অচেনা জগতে। সে জানতে পারে যে সে পড়ে গিয়েছে এক পাষণ্ড একনায়ক রাজা হামদোর খপ্পরে, যে কিনা নিজের স্বার্থের জন্য লালা রুকে চায়। শুউ কী পারবে লালা রুকে বাঁচাতে? সে কী পারবে নিজের জগতে ফিরে যেতে?
 
গল্পের সেটিং অত একটা অসাধারণ না হলেও আনিমেটি অনেক দিক দিযেই অসাধারণ। এতে মানবমনের কুৎসিত দিক ও ভালো দিক দুটিই কঠোর বাস্তবতার মিশেলে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। যুদ্ধের ভয়াবহতা ও মানবমনে এর বিচিত্রমুখী প্রভাব ও সবশেষে ভায়োলেন্সের খারাপ পরিণতিগুলি চোখের সামনে চলে এসেছে কোনরকম রাখঢাক ও কৃত্রিমতা ছাড়াই। আনিমেটি বেশ ডিপ্রেসিং হলেও অবশ্যই দেখার মতো।
 
গল্পের চরিত্রগুলিকে অনেক যত্নের সাথে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে বিধায় ওদের আপন বোধ হয়। ওপেনিং আর এন্ডিং গানদুটি চমৎকার। ডিরেকশন ও ওএসটির জবাব নেই। ধীরলয়ে, যত্নের সাথে এক অত্যন্ত মানবিক গল্প বলেছে আনিমেটি।
 
ডিপ্রেসিং জিনিসে আপত্তি না থাকলে অবশ্যই অবশ্যই দেখবেন। এইরকম আনিমে পাওয়াই যায় না।
 

Sakib’s Hidden Gems – Episode #22

আনিমে: Eikoku Koi Monogatari Emma (Emma: A Victorian Romance)

জানরা: রোমান্স, হিস্টোরিকাল, স্লাইস অফ লাইফ, সেইনেন
এপিসোড সংখ্যা: ১২ + ১২
MAL লিঙ্ক: https://myanimelist.net/anime/345/Eikoku_Koi_Monogatari_Emma
 
লন্ডন, ১৮৯৬ সাল। এক অবসরপ্রাপ্ত বৃদ্ধা গভর্নেসের বাসায় মেইডের কাজ করছে এমা নামের এক তরুণী। মিতভাষী শান্ত সুন্দরী এমার পাণিপ্রার্থীর অভাব হয় না, কিন্তু সবাইকে সে কেন জানি মানা করে দেয়। গভর্নেসকে দেখা করতে একদিন এলো উনার যত্নে বড় হওয়া লন্ডনের এক উচ্চবিত্ত ঘরের ছেলে উইলিয়াম। এমাকে দেখেই তার ভালো লেগে গেল। ফুর্তিবাজ ও খোলামেলা উইলিয়ামকে এমারও বেশ ভালোই লাগলো। এরপর শুরু হলো মন দেওয়া-নেওয়ার পালা। কিন্তু সমাজের একেবারে দুই প্রান্তে থাকা জুটি কী পারবে এক হতে?
 
আনিমের পুরোটা জুড়ে একটা ধীরলয়, শান্ত সৌন্দর্য আছে। ওএসটি সুদিং, ওপেনিং ও এন্ডিং গানদুটিতে লিরিক্স নেই, কিন্তু বেশ প্রশান্তি আনে। আর্টস্টাইল সিমপ্লিস্টিক ও দেখতে ভালো লাগে। তৎকালীন ইউরোপের একটি বাস্তব চিত্র ফুটে উঠেছে আনিমেটিতে। চরিত্রগুলি বেশ বাস্তবিক আচরণ করায় ওদের বেশ ভালো লেগে যায়, যোগস্থাপন করা যায় সহজেই। রোমান্টিক ডেভেলপমেন্টও বেশ বাস্তবসম্মত। তাই আমি রোমান্স জানরার বড় ভক্ত না হওয়া সত্ত্বেও এই আনিমেটি খুব উপভোগ করেছি।
 
বাস্তবতার ছোঁয়াসমৃদ্ধ ধীরলয়ের রোমান্টিক গল্পের সন্ধানে থাকলে এটি দেখবেন। মাঙ্গাটিও পড়তে পারেন। লেখিকা মরি কাওরু উনার আর্টের জন্য বিখ্যাত। ওনার Otoyomegatari মাঙ্গাটি পড়ে দেখার প্রস্তাব রইল।