সামুরাই চ্যাম্পলু [রিভিউ] — Rafiul Alam

Samurai Champloo

“এইটা না এদো পিরিয়ডের কাহিনী? নামের মধ্যেই সামুরাই আছে যে জিনিসে সেটা কিভাবে ওয়েস্টার্ন হয়?”
ওয়েল টাইটেলেই ভেল্কিবাজি। চ্যাম্পলু শব্দের বাংলা অর্থ হল গুলানো । তাই এনিমেটি এদো পিরিয়ডের পটভূমির, কিন্তু মডার্ন কালচার আর হিপহপ ইনফ্লুয়েন্সড। বলা যায়, দা ভেরি ডেফিনিশন অফ ইউনিক এনিমে। চ্যাম্পলু এমন একটি এনিমে, যেখানে তরবারির কোপাকুপিতে লিটারেলি রক্তের বন্যা বয়ে যায়, কিন্তু তাতেও স্ক্রিনের থেকে চোখ সরাতে পারবেন না। ভায়োলেন্স, এক্সপ্লিসিটনেস ছাড়াও অনেক বেশি ম্যাচুর থিমের শো মনে হয়েছে। সামুরাই চ্যাম্পলু অনেক দিক থেকেই কাউবয় বিবপের অনেক কাছের আত্নীয়। যার মূল কারণ, উভয়েরই ডিরেক্টর ছিলেন ওয়াতানবে শিনোচিরো। আনিমেটি বর্তমানে বিলুপ্ত ম্যানগ্লোব স্টুডিও থেকে ২০০৪-৫ সালে এয়ার হয়। ২৪ মিনিটের মোট ২৬ টি এপিসোড। সম্পূর্ণ জাপানি সেটাপের গল্প হলেও সাবের চেয়ে ডাব বেশি ভালো লেগেছে।

Synopsis:
ঘটনার অন্যতম প্রোটাগনিস্ট ১৫ বছরের ফু কাসুমি একটি রেস্টুরেন্টে ওয়েট্রেস হিসেবে কাজ করে। একদিন সেই রেস্টুরেন্টে গুন্ডা পান্ডার দল ইচ্ছামত পেটপূজা করতে আসে। অবস্থা খারাপ হয় যখন ভুলক্রমে ফু একজনের মুখের উপর চা ফেলে দেয়। গুন্ডার দল ফু এর উপর চড়াও হয়, তার আঙুল কেটে ফেলবে বলে!
এখন ফুকে ফ্রি ডাম্পলিংয়ের চুক্তিতে বাঁচাতে আসে তরবার গুরু মুগেন। ব্রেকডান্সের তালে একাই গুন্ডার দলকে “কুপিয়ে” রক্তারক্তি কান্ড ঘটিয়ে দেয় সে। সেখানে থাকা জমিদারের (গভর্নর) ছেলেকেও ভয় পায় না সে। কিন্তু মারামারি আরও খারাপ আকার ধারন করে যখন সেখানে ঢুকে আরেক তরবার গুরু সামুরাই জিন। মাঝখান দিয়ে এক গুন্ডা রেস্টুরেন্টে আগুন ধরিয়ে দেয়। আগুন লাগলে সবাই জানে বাঁচলেও মারা যায় সেই জমিদারের ছেলে। ফলে সরকারি লাঠিয়াল বাহিনী জিন ও মুগেনকে বন্দি করে পরদিন পাব্লিক এক্সিকিউশন করার জন্য। তো সেই রাতে, তাদের বন্দিশালায় ফু এর আগমন ঘটে। ফু চুক্তি করে যে সে তাদেরকে পালানোর জন্য সাহায্য করবে, বিনিময়ে তাদের একজন সামুরাইকে খুজে দিতে হবে। পরদিন লংকাকান্ড বাধিয়ে জিন আর মুগেন এক্সিকিউশন থেকে পালায়। কিন্তু ফু তাদের পিছু ছাড়ে না। সে তার চুক্তি অনুযায়ী সেই সামুরাইকে খুঁজার জন্য মুগেন আর জিনকে শক্ত করে ধরে। মজার ব্যাপার হল, ফু সেই সামুরাই সম্পর্কে তেমন কিছুই জানে না। শুধু জানে যে সেই সামুরাই থেকে নাকি সূর্যমূখী ফুলের ঘ্রাণ বের হয়। কিন্তু জিন আর মুগেন নিজেদের ফাইট নিয়ে ব্যস্ত। কয়েন দিয়ে টস করে ফু তাদের মারামারি থামায়। এবং চুক্তি হয়, সেই সূর্যমুখী সামুরাই কে না পাওয়া পর্যন্ত জিন আর মুগেন নিজেদের মাঝে ফাইট করতে পারবে না। অগত্যা মুগেন আর জিন, ফু এর সূর্যমুখী সামুরাই খোঁজে তার সহযাত্রী হতে রাজি হয়। শুরু হয় সূর্যমুখী সামুরাই অভিযান। এরপরের ঘটনাগুলো মূলত এপিসোডিক, কিন্তু মূল কাহিনী ঠিকই ফোকাসে থেকে আগাতে থাকে। এক্সাইটিং একশন সিনের সাথে ক্যারেক্টার ব্যাকস্টোরি রিভিল হতে থাকে। ফলে কয়েক এপিসোড পর চাইলেও ড্রপ দেয়া যায় না।

Theme setup, Animation and Music:
পটভূমি কেমন? সেটার এক লাইনের উত্তর হবে, “শিনোচিরোর চোখে এদো পিরিওড।”
এমন এক জাপানকে দেখানো হয়েছে, যেখানের মানুষজন চালচলনে উনিশ-বিশ শতকের কিন্তু মনের দিক থেকে ২১ শতকের। খুব লক্ষ করলে মডার্ন মিউজকের ইস্টার এগ ধরতে পারবেন। চ্যাম্পলুর আর্টওয়ার্ক, এনিমেশন বেস্ট অফ ২০০৪-৫। ব্যক্তিগতভাবে সেই সময়ের নন আই ক্যান্ডি কিন্তু রিয়েলিস্টিক মুভমেন্টের এনিমেশন আমার অনেক প্রিয়। আর চ্যাম্পলু সেই ধরনের আনিমেশনের ব্রান্ড এম্বাসেডর। ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিককে সব দিক থেকে এক্সপ্লয়েট করা হয়েছে। এবং অবশ্যই তাতে হিপহপের ইনফ্লুয়েন্স লক্ষণীয় ছিল। তবে আমার প্রিয় হল এপিসোড ১৪ এর রিয়ুকিউয়ান মিউজিক, অবোকুরি ইউমি ট্র্যাকটি। মিউজিকের দায়িত্বে ছিলেন জাপানিজ হিপহপ গুরু, রেকর্ড প্রোডিউসার জুন সেবা (নুজাবেস)। তার করা এনিমের ওপেনিং ট্র্যাক, ব্যাটলক্রাই, আমার শোনা বেস্ট ওপেনিং গুলার একটি। মিনমির গাওয়া এন্ডিং গানটাও বার বার শোনার মত।

Characters setup:
১৫ বছরের হাসিখুশি মেয়ে ফু, রাফ এন্ড টাফ মুগেন এবং ঠান্ডা মাথার জিন, এই ত্রয়ীর এডভেঞ্চার নিয়েই সামুরাই চ্যাম্পলু। এপিসোডিক এনিমে বিধায় সাইড ক্যারেক্টরের অভাব নেই। “ব্যাড গাই” বা “গুড গাই”, যে যাই হোক না কেন, প্রতেকটি ক্যারেক্টার ডিজাইন ইউনিক। শুরুর থেকেই সবার আলাদা বৈশিষ্ট্যগুলো অনেক বেশি স্পষ্টভাবে নজরে আসবে। একই সাথে চরিত্রগুলোর একে অপরের সাথে সম্পর্কের বিল্ডাপ দেখানো হয়েছে।
ফাইনালি আমি বলব, সামুরাই চ্যাম্পলু সব দিক থেকেই ইউনিক একটি এনিমে যা সব রুচির দর্শকের কাছেই ভালো লাগবে। কারো দেখা মাস্টারপিস এনিমের লিস্টে চ্যাম্পলু না থাকার সবচাইতে গ্রহণযোগ্য ব্যাখ্যা সম্ভবত “সে চ্যাম্পলু দেখে নি”।

Opening track:

https://www.youtube.com/watch?v=OobUV9q0aDA

OST Playlist:

https://www.youtube.com/watch?v=yS6uWWrjf8c&list=PL3E1DD4F30F9D8923

Overall Rating :
MyAnimeList.net: 8.5/10
IMDb: 8.7/10
My Rating : 9.5/10

Samurai Champloo reaction by Monirul Islam Munna

সামুরাইদের নিয়ে এনিমে দেখতে গেলেই, সব সময়ই মনে করতাম যে এনিমেটা হবে খুবই ফাস্ট ধরণের আর অস্থির একশন, sword fight,ব্যাডএস character ভরপুর কিছু। কিন্তু Samurai champloo দেখে আমার সেই ভুল ভাঙল।

মূলত ৩ চরিত্র মুগেন, জীন আর ফু কে নিয়েই এনিমেটা। কিন্তু একজন থেকে একজনের দূরদুরান্তে কোন মিল নেই। মুগেন ruthless, মাথা নষ্ট একটা character আর জীন ঠাণ্ডা মাথার, cool একটা সামুরাই। অন্যদিকে ফু খুবই সাধারণ, cute , sweet মেয়ে

এক রহস্যময়ই সামুরাইর খোজে মত্ত ছিল ফু। আর ভাগ্যের জের ধরেই, ফু এর সেই যাত্রার মধ্যে পরিচয় জীন আর মুগেনের সাথে। ২ মেরুর ২জগতের বাসিন্দা হলেও, সেই রহস্যময়ই সামুরাইর খোজে যোগ দেন ২জন। যাত্রাটাকে বেশ সুন্দর একটা adventure হিসেবে দেখানো হয়েছে এনিমেটাতে। লম্বা সময়ের সেই যাত্রায় হরেক রকমের যায়গায়,হরেক রকমের মানুষের সাথে হরেক রকমের অনুভূতি ছিল। কেমন যেন একটা উনিকনেস আছে এর কাহিনীর মধ্যে।

এনিমেটার উনিকনেস যেন সব কিছুতেই ছিল,কমেডিগুলো, ফু এর facial expression আর বিশেষ করে OST গুলা। একবার শুনলে বার বার শুনতে ইচ্ছা করবে। আমার সব চেয়ে বেশী পছন্দের OST এখন এটাঃ http://www.youtube.com/watch?v=9lhqg-hO61Q

খুব ফাস্টও না, আবার খুব স্লোও না,কিছুটা ঠাণ্ডা ধাঁচের মজার একটা এনিমে। খালি একশন না দেখে, ভালো কাহিনী সহ কোন সামুরাই/একশন based এনিমে দেখতে চাইলে সামুরাই চাম্পলো অবশ্যই দেখা উচিৎ। খুবই ভালো সময় কাটবে নিশ্চিত।

MAL rating 8.51
My Rating 8.2