Seikaisuru Kado/Kado: The Right Answer [রিভিউ] — Safin Zaman

Kado

Seikaisuru Kado / Kado: The Right answer 
পর্ব সংখ্যাঃ ১২
জনরাঃ সাই-ফাই
ম্যাল রেটিংঃ ৭.১৭

অন্যসব দিনের মতই সাধারণ আরেকটা দিন। সব ঠিকই চলছে। কিন্তু হঠাত করেই আকাশ থেকে এক অজানা উড়ন্ত বস্তু নামলো, সেই অজানা বস্তুর ভেতর থেকে বের হলো কিম্ভুতাকার কিছু প্রাণী……অতিপরিচিত একটা সিনারিও।

‘ফার্স্ট কনট্যাক্ট’ বা এলিয়েনদের সাথে মানবজাতির দেখা সাক্ষাত নিয়ে নতুন করে বলার কিছু নাই। এ নিয়ে অজস্র মুভি,বই হয়েছে । কিছু জায়গায় এলিয়েনরা মানবজাতির ভাল চায়, আবার কিছু জায়গায় এলিয়েনদের কাজ হলো পিউ পিউ শব্দ করা লেজার গান নিয়ে মানবজাতি নির্মূল করা। তবে এত জনপ্রিয় হওয়ার পরেও এনিমেতে এই কনসেপ্টের উপর ভিত্তি করে এনিম ছিল না বললেই চলে। আর এই অভাব পুরন করতেই এল গত স্প্রিং ২০১৭ সিজনের এনিমে Seikaisuru Kado/ Kado: The Right Answer.

এনিমের শুরু অন্যসব ফার্স্ট কনট্যাক্টের মত করেই। একদিন হঠাত করে জাপানের এক এয়ারপোর্টের উপর আগমন ঘটে এক রহস্যময় কিউবের । ২ কিলোমিটার দৈর্ঘ,প্রস্থ ও উচ্চতার এই পার্ফেক্ট কিউবের ভেতর আটকা পড়া প্যাসেঞ্জার প্লেন উদ্ধারে যখন দেশের উচ্চপদস্থরা ব্যস্ত তখন তাদের হতবাক করে দীয়ে কিউবের ভেতর থেকে বের হয়ে আসে সাদা চুলের এক রহস্যময়ী ব্যক্তি যে নিজের পরিচিয় দেয় Yaha kui zaShunina নামক এক ‘হাইয়ার ডাইমেনশনাল’ সত্বা হিসেবে। শুধু তাই নয়, সে তার সাথে এমন কিছু প্রযুক্তি নিয়ে এসেছে যা মানবসভ্যতাকে কয়েক লক্ষ বছর সামনে এগিয়ে দিতে সক্ষম।

কিন্তু মানুষ মানুষই, এই হাইয়ার ডাইমেনশনাল বিইং আর এর প্রযুক্তি তারা কোনভাবেই ভালো মত নিতে পারল না। একদিকে বিশ্বের প্রভাবশালী দেশগুলোর মধ্যে কে প্রযুক্তিগুলোর মালিক হবে তা নিয়ে বাগড়া বাধল, আরেকদিকে মানবসভ্যতার এই আকস্মিক অগ্রগতির বিরুদ্ধেও মতামতও দেখা গেল। সব মিলিয়ে পুরো বিশ্ব এই বিষয় নিয়ে পড়ল চরম বিশৃংখলায়। আর এভাবেই এগিয়ে চলে এনিমের কাহিনী।

সেইকাইসুরু কাডোর অন্যতম ভালো দিক হচ্ছে এটি কিভাবে অন্য জগত থেকে আসা এক প্রাণির সাথে মানবজাতির কনট্যাক্টকে বেশ ভালোভাবেই ফুটিয়ে তুলেছে। এলিয়েনরা মানবসভ্যতাকে তাদের প্রযুক্তি অফার করলে আমরা যে তা হাসিমুখে না নিয়ে সেইটা নিয়ে রাজনীতি শুরু করব তা ভালোভাবেই দেখানো হয়েছে। অযথা কথাবার্তা নাই, মোটামুটি ফাস্ট পেইসড এই এনিমে একেবারে প্রথম এপিসোড থেকেই দর্শকের মনোযোগ ধরে রাখতে সক্ষম।

আমার প্রথম ৮-৯ এপিসোড অনেকটা ভালোই লেগেছিল তবে সমস্যা শুরু হলো এপিসোড ১০ থেকে। এনিমে তার স্বাভাবিক রুপ বাদ দিয়ে হঠাত করেই যেন এক সেমি-রোমান্টিক, সেমি-একশন, হাইয়ার ডাইমেনশনাল বিইংদের ঠুকাঠুকিতে পরিণত হয়। কয়েকটা প্লট টুইস্ট ছিল যার কোন প্রয়োজনই ছিল না বলে আমি মনে করি। আর সিরিজটা যে তার নিজস্বতা বাদ দিয়ে অন্য পথ ধরে দৌড়ানো শুরু করে তা দেখে কিছুটা হতাশই হয়েছি বলা যায়। কাল্ট ক্লাসিক কিছু হওয়ার ভাল সম্ভাবনা ছিল।

তবে মনমত না হলেও যে এঞ্জয় করিনি তা বলা ভুল হবে। ভাগ্য ভাল যে শেষের দিকে গিয়ে যে এর কোয়ালিটি ড্রপ করা শুরু করে তার আন্দাজ আগে থেকেই ছিল। তা না হলে অনগোয়িং যারা দেখেছে তাদের মতই হতাশ হওয়া লাগত। মোটকথা, শুরু থেকে একেবারে শেষ পর্যন্ত কাডো আমি এঞ্জয় করেছি। এঞ্জয়মেন্টের হিসেবে স্কোর দিলে ইজিলি ৮/১০ দিয়ে দেওয়া যায়। খুব বেশি খুতখুতে না হয়ে স্রেফ এঞ্জয়মেন্টের জন্যও কাডো দেখা যায় চাইলে।

একটা জিনিস বলে রাখা ভাল যে এনিমেতে সিজির ব্যবহার ছিল কিন্তু তা যথেষ্ট ভাল। মুলত একশন সিরিজ না হয়ে ডায়ালগ বেইসড সিরিজ হওয়ায় এই সিজি অতটা চোখে লাগে নাই। সিজি সহ্য না করতে পারলেও এই সিজি খারাপ লাগবে না। সিজি হওয়া সত্বেও এর ভিজ্যুয়াল চমৎকার ছিল।বিশেষ করে কাডো এর ভেতরকার দিকের সিনগুলো।

সবশেষে যদি কোন সাই-ফাই জনরার এনিমে খুঁজে থাকেন তবে কাডো রেকমেন্ডেড।গতানুগতিক এনিমে বাদ দিয়ে একটু ম্যাচিউর ধরনের এনিমে খুঁজলে কাডো দেখতে পারেন। মাত্র ১২ পর্বের এই সিরিজ ভালো লাগবে আশা করি।

Comments

comments