Best Long Running Shounen Anime (2014) – Naruto Shippuuden

গতবার থেকে যেন কিছু পরিবর্তনই হয় নি। এ বছরেও সবার উপরে নারুতো শিপ্পুদেন। আগামী বছরই সম্ভবত শেষ হয়ে যাবে এই কিংবদন্তি আনিমেটি, এবং শেষ হওয়ার আগেই ফিলার, ফ্ল্যাশব্যাক সবকিছুর মধ্যে দিয়েও অসাধারণ কিছু মুহূর্ত উপহার দিয়েছে নারুতো এবং বাকি নিনজারা। নারুতোর অন্যতম ভালো বৈশিষ্ট্য সবসময়ই ছিল এটা দর্শকদের যে ইমোশনাল জার্নির মধ্যে নিয়ে যায়, তা। এ বছর গ্রেট নিনজা ওয়ার আর্কেও নানা ঘটনার মধ্যে দিয়ে সেই কাজ ঠিকই করে গেছে নারুতো শিপ্পুদেন। এবং এটাই এ বছরের লং রানিং শোনেন ক্যাটেগরিতে সেরা।
দ্বিতীয় স্থানেই আগের মত আছে হান্টার এক্স হান্টার(২০১১)। এ বছরই সেপ্টেম্বরে আপাতত প্রচার শেষ হয়েছে সর্বকালের অন্যতম সেরা রক্ত গরমকারী এ শোনেন একশন আনিমেটি। এখনও পপুলারিটির দিক দিয়ে হয়ত এটা নারুতো, ওয়ান পিস থেকে অনেক পিছে, কোয়ালিটিতে যে এটাও অনেক উপরে সেটার প্রমাণ এ বছরও রেখে গেছে আনিমেটি।

9-best-shounen

 

Best Sports Anime (2014) – Kuroko no Basket 2nd Season

একটা স্পোর্টস এনিম সিরিজ ভাল লাগার জন্য কোন জিনিস সবচেয়ে বেশি দরকার? আমার মনে হয় বেশিরভাগ মানুষই যে উত্তরটার সাথে একমত হবেন সেটা হচ্ছে “entertainment factor”. Cause let’s face it, ক্যারেক্টার ডেভেলপমেন্ট, চমৎকার স্টোরি, বাস্তবতার সাথে পরিচয় করায় দেওয়া, একটা থিম – এইসব ভারী ভারী জিনিসের জন্য স্লাইস অফ লাইফ বা সাইকোলোজিকাল – অনেক জন্রার সিরিজই রয়েছে। দিনশেষে পিওর এন্টারটেইনমেন্টের জন্যও কিছু জিনিস আলাদা করে রাখতে হয়; এবং তার জন্য এনিমের ক্ষেত্রে স্পোর্টস জন্রার চেয়ে ভাল কিছু হতে পারে না। আর এই মানদন্ডে বিবেচনা করলে খুব স্বাভাবিকভাবেই এই বছরে মেম্বারদের ভোটে সেরা সিরিজ নির্বাচিত হয়েছে kuroko no Basuke – season 2.
অসংখ্য জ ড্রপিং মোমেন্ট, প্রায় প্রত্যেকটা স্কুলের এক বা একাধিক চরিত্রের ভাল রকম স্ক্রিনটাইম, হাই ক্যালিবার প্লে, ডিফেন্স, অফেন্স,‌ স্পিড, থ্রি পয়েন্টার, ডাঙ্ক, ফেইক, পাস – প্রত্যেকটা টিমের আলাদা শক্তিকে স্পষ্টভাবে ফুটিয়ে তোলা, অবিশ্বাস্য মুভগুলোর যথাসম্ভব বিশ্বাস্য ব্যাখ্যার চেষ্টা, চরিত্রগুলোর অভ্যন্তরীণ মনস্তাত্ত্বিক লড়াই – সব মিলিয়ে স্পোর্টস এনিম লাভাররা অন্তত এই সিরিজটিকে ভুলতে পারবেন না অনেকদিন। ৪৫% ভোট পাওয়া এই সিরিজের পাশে ২৭% ভোট পেয়ে দ্বিতীয় স্থানে এসে রীতিমত চমক দিয়েছে পিং পং। ক্লাসিক, শো কেইসে তুলে রাখার মতন এই সিরিজ মানুষ কতদিন মনে রাখবে তা হয়ত সময়ই বলে দেবে; তবে পিং পং তার থিম, সার্বজনীন বার্তা আর স্পোর্টস এর চেয়ে এর পেছনের মানুষগুলোর দক্ষ রুপায়নে মুন্সিয়ানার পরিচয় দিয়ে এনিমখোরদের হৃদয় কিছুটা হলেও জয় করে নিতে সক্ষম হয়েছে – এ কথা নির্দ্বিধায়ই বলা যায়।
এছাড়া স্পোর্টস এনিম লাভারদের জন্য দুর্দান্ত এই বছরের পোলে অন্যান্য প্রমিনেন্ট সিরিজগুলোর মধ্যে হাইকিউ, হাজিমে নো ইপ্পো, বেবি স্টেপ্স এর মতন সিরিজগুলোও ভাল লড়াই করেছে।

8-best-sports

 

Best Ecchi Anime (2014) – Kill la Kill

শিহরন জাগানো যেসব এচ্চি এনিমে এই ২০১৪ সালের উত্তেজনার খোরাক ছিল সেই সব এনিমের মদ্ধে সবাই কে পিছে ফেলে বিশাল ব্যাবধানে বিজয়ী হয়েছে ”Kill la Kill”এই এনিমে যেন এচ্চি প্রেমিদের হাতে স্বর্গ এনে দিয়েছিল।এমন যদি হত ,যে কাপড়ের ও প্রান আছে,তাহলে কেমন হত?

ফ্যান্টাসি সুপারন্যাচারালিটির সাথে আবেদনময়ী ,স্বাধীঞ্চেতা, ডমিনেটিভ এবং সহজ সরল বেশ কিছু নারী চরিত্রের সমাবেশ ঘটেছে এ এনিমে। ধুন্ধুমার একশন এর সাথে চমকপ্রদ বসনায় শোভিত চরিত্র এর মারাপিট দেখে কার না মন ভাল হয়ে যায়। নিকটতম প্রতিদন্দী ‘No Game No Life’ ও ছিল এন্টারটেইনমেন্ট এ পরিপূর্ন। ২০১৪ সালের সেরা এচ্চি এনিমে হিসাবে অভিনন্দন জানাই ”Kill la Kill ” কে।

7-best-ecchi

 

Best Sci-Fi Anime (2014) – Aldnoah.Zero

যদি জিজ্ঞাসা করা হয়, কোড গিয়াসের এসেন্স অন্য কোন আনিমেতে আছে? ডেথ নোট? কিছুটা। লেজেন্ড অব দ্য গ্যালাক্টিক হিরোস? হয়তো। কিন্তু এই বছরে রিলিজ পাওয়া আলডনোয়াহ/জিরো চরিত্রায়ন, কাহিনী, এমনকি জনরার দিক থেকেও কোড গিয়াসের প্রকৃত উত্তরাধিকারী। দারুন সাউন্ডট্র্যাক সম্বলিত এবং শেষ পর্ব প্রচার হবার পরে ইন্টারনেট ফেটে পড়া , এই ইফেক্ট সম্ভবত এক আলডনোয়াহ/জিরোই ২০১৪ সালে দিতে পেরেছে। কাজেই বহু বিতর্ক থাকা সত্ত্বেও আলডনোয়াহ/জিরোই সাই-ফাই জনরার বিজয়ী। ওদিকে সাইকো পাস টুতে পুরনো সিজনের কোগামী বা মাকিশিমা সেই জনপ্রিয় জুটি নেই, তাতে অবশ্য সেকেন্ড সিজনের কোয়ালিটি খুব একটা হ্রাস পায়নি। আগের সিজনের মত এবারো সিবিল সিস্টেমের ত্রুটি, আর এই বিষয়ক নিজস্ব দর্শনের এক এন্টাগনিস্ট নিয়েই এই সিজন সাজানো। অ্যাকশন প্যাকড, সেই সাথে চমত্কার সাউন্ডট্র্যাক, প্রত্যাশা পুরোপুরি পূরণ করতে না পারলেও সাইকো-পাসই হয়েছে এই পোলে দ্বিতীয়।

6-best-sci-fi

 

Best Psychological/Mystery Anime (2014) – Zankyou no Terror

২০১৪ সালের সবথেকে বেশি আশা-ভরসার এনিমে ছিল সম্ভবত জাঙ্কিউ নো টেরর (টেরর ইন রেজোন্যান্স), এর পিছনে ছিল কাউবয় বিবপ-সাকামিচি নো আপালোন খ্যাত ওতানাবে শিনিচিরো আর ইউক্কো কান্নোর মত বিখ্যাত নাম… চমকপ্রদ কাহিনী আর বেশ প্রমিজিং স্টার্টিং দিয়ে শুরু থেকেই দর্শকদের মাতিয়ে রেখেছিল এই এনিমেটি… আর এর সবথেকে বড় এস্পেক্ট সম্ভবত রোম খাড়া করে দেবার মত দূর্দান্ত সাউন্ডট্র্যাক। ক্যারেক্টার, ইন্টারেস্টিং প্লট, ক্যাপটিভেটিং ডেভেলপম্যান্ট সবদিক দিয়েই এ+ এই এনিমেটিই বিপুল ভোটের ব্যবধানে দখল করে নেয় বছরের সেরা সাইকোলজিক্যাল/মিস্ট্রি ক্যাটেগরিতে প্রথম স্থানটি… অতিরিক্ত এক্সপেক্টেশন আর কিছু প্লটহোল/ফ্ল এর এক্সপেক্টেড কোয়ালিটিকে কিছুটা প্রশ্নবিদ্ধ করলেও এটি যে বছরের অন্যতম সেরা এনিমে এতে কোন সন্দেহের অবকাশ নেই। সাইকোলজিক্যাল জনরায় বছরের অন্যতম সেরা সংযোজন ছিল টোকিও ঘুল, বেশ জনপ্রিয় মাঙ্গার এই এডাপটেশনের প্রতি অনেক বেশি এক্সপেক্টেশন ছিল প্রথম থেকেই, হয়ত পুরোপুরি মেটাতে পারে নি, কিন্তু খুব কম দেয় নি দর্শকদের এনিমখোর টপচার্টে দ্বিতীয় হওয়া এই এনিমেটি… এছাড়াও সাইকোলজিক্যাল/মিস্ট্রি দুনিয়ায় তুমুল সাড়া ফেলে দেওয়া সাইকো পাসের দ্বিতীয় সিজন আর হানামনোগাতারি-মনোগাতারি সেকেন্ড সিজনও ছিল দর্শক আগ্রহের শীর্ষের দিকে।

5-best-psychological-mystery

 

Best Romance Anime (2014) – Ao Haru Ride

রোমান্টিক এনিমে ক্যাটেগরীতে ২০১৪ সালে ছিল গোল্ডেন টাইম, নিসেকই, নাগি নো আসুকারা, ইশশুকান ফ্রেন্ডস, আও হারু রাইড সহ বেশকিছু এনিমে, যার সবকটাই নিজস্ব বৈশিষ্ট্য মনজয় করে নিতে পারে রোমান্টিক এনিমে লাভারদের। এনিমখোরদের ভোটে দ্বিতীয় স্থানে ছিল গোল্ডেন টাইম, শুরুর দিকে বেশ হাইপ ছিল এটা নিয়ে, কেউ কেউ তোরাদোরার সাথে তুলনা করেছেন, কেউ একে মার্কড করেছেন ইউনিভার্সিটি লাইফ নিয়ে বানানো খুব কম এনিমের একটি হিসাবে…যাইহোক রোমান্টিক এনিমে দর্শকদের জন্য বেশ উপভোগ্য একটা সিরিজ সন্দেহ নেই… কিন্তু একে যোজন যোজন পিছনে ফেলে বিপুল ভোটের ব্যবধানে ২০১৪ সালের বেস্ট রোমান্টিক এনিমে হয়েছে আও হারু রাইড…বেশ টিপিক্যাল সেটিংস কিন্তু হাল্কা হাল্কা ডাইভারসিটি দিয়ে একটা ভিন্ন এক্সপেরিয়েন্সের প্রয়াস, এই এনিমেটা আসলেই রোমান্টিক এনিমে হিসাবে পারফেক্ট, বেশ কুল টাইপ নায়ক, নিজের ফিলিংস সম্পর্কে কনফিউসড, নিজের রোল সম্পর্কে কিছুটা কনফিউসড নায়িকা, সাধারণ কিছু স্কুল ইভেন্ট, ফিল্ড ট্রিপ, ফেস্টিভ্যাল, প্রতিদ্বন্দী, ট্রায়াঙ্গেল ইত্যাদি ইত্যাদি… তবে হ্যাঁ, মিডল স্কুলে পরস্পরকে পছন্দ করা এবং কালের স্রোতে আমূল বদলে যাওয়া দুজনের সেকেন্ড চান্স নিয়ে নির্মিত এনিমেটি অবশ্যই কিছুটা ভিন্ন মাত্রা যোগ করতে পারবে রোমান্টিক এনিমে এক্সপেরিয়েন্সে…সবশেষে, অভিনন্দন, আও হারু রাইড, বেস্ট রোমান্টিক এনিমে-২০১৪… [আও হারু রাইডের একটা ওভিএ এসেছে, দেখে নিতে পারেন দ্রুত।]

4-best-romance

 

Best Comedy Anime (2014) – Gekkan Shoujo Nozaki-kun

কমেডি লাভারদের জন্য অসাধারণ একটা বছর ছিল ২০১৪, বারাকামন, কাওয়াই কমপ্লেক্স, তোনারি নো সেকি কুন, আই কেন্ট আন্ডারস্ট্যান্ড হোয়াট মাই হাসবেন্ড সেয়িং সহ একের পর এক চমৎকার হাসির এনিমে মন্ত্রমুগ্ধ করে রেখেছে এনিমখোরদের। কিন্তু দিনশেষে এনিমখোর টপচার্ট- বেস্ট কমেডি এনিমে ক্যাটেগরীতে শেষ হাসি হাসল গেক্কান সোজো নোজাকি কুন, তাও দ্বিতীয় স্থানে থাকা বারাকামনের প্রায় দ্বিগুণ ভোট পেয়ে।

গেক্কান সোজো নোজাকি-কুন এনিমেটির কয়েকটা বেশ ডিস্টিঙ্কটিভ ফিচার আছেঃ ১/ মেইল এবং ফিমেইল দুই গ্রুপেরই পছন্দ হয় এমন রোমান্টিক এনিমে পাওয়া একটু মুশকিল, যেক্ষেত্রে এই এনিমেটা অসাধারণ পারফর্ম করতে পেরেছে। ২/ এই এনিমের অন্যতম বৈশিষ্ট্য হলো একের পর এক সারপ্রাইজ, একদম প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত… ভিউয়ারদের একটা মুহূর্ত বোরড হবার সুযোগ নাই… ৩/ সবশেষে ক্যারেক্টারস, সিমপ্লি অস্থির, মেইন দুই ক্যারেক্টার খুবই পাওয়ারফুল, ডাইনামিক আর বৈচিত্র্যময়… আরো ইন্টারেস্টিং এস্পেক্ট হলো সাইড ক্যারেক্টারগুলা, কম সময়ের জন্য আসলেও পুরো ফর্ম নিয়ে এসেছে আর পরিষ্কার প্রভাব বিস্তার করে গেছে… এই দূর্দান্ত এনিমেটিকে বছরের সেরা কমেডি এনিমে হওয়াতে অসংখ্য অভিনন্দন… দ্বিতীয় স্থানে থাকা বারাকামন নিয়ে নতুন করে বলার তেমন কিছু নেই, বছরের সবথেকে আলোচিত এনিমেগুলোর মধ্যে একটি এই অস্থির হাস্যরসাত্মক মজাদার এই এনিমেটি নির্দ্বিধায় প্রাণখুলে হাসাতে পেরেছে শত-সহস্রকে…

3-best-comedy

 

Best Slice of Life Anime (2014) – Barakamon

শহুরে ইটকাঠের মধ্যে ক্যালিগ্রাফার হান্দার মন বিষিয়ে উঠলো যখন, প্রকৃতির কাছে সে খুঁজে নিল আশ্রয়। গ্রামের সহজ সরল শিশু, আর দিলখোলা মানুষের সাথে অসামাজিক, রূঢ় হান্দার মিথস্ক্রিয়া, ব্যস, সহজ সরল প্লট বারাকামনের। বলতেই হবে, চমত্কার ভয়েস এক্টিং এর সাথে জীবনের ছবি যেন ক্যালিগ্রাফির তুলি দিয়েই আঁকা হয়েছে, তবে তা রঙিন, জীবন্ত। ইনস্ট্যান্ট হিট বারাকামন যদিও বহুল প্রচলিত ফর্মুলা ব্যবহার করেছে বেশিরভাগ গ্যাগ এলিমেন্টের ক্ষেত্রে, কিন্তু শেষমেষ অসমবয়সী দুজনের এই জুটি সম্ভবত আরো বছরখানেক ফ্যানদের মনে থাকবেই।

অন্যদিকে দ্বিতীয় স্থানে থাকা গিন নো সাজি সিজন টু ছিল একাধিকহতাশাজনক মাঙ্গা এডাপ্টেশনের বছরে একটি চমৎকার মাঙ্গা থেকে বানানো ততোধিক চমৎকার একটিআনিমে। কৃষিভিত্তিক স্কুল ইউজো হাই-এ হাচিকেন ইউগো ও তার সঙ্গী-সাথীদের গল্প নিয়েদুই সিজনের এই আনিমে সম্ভবত চলে যাবে ক্লাসিক স্লাইস অফ লাইফ আনিমের লিস্টে।

2-best-slice-of-life

 

Best Action Anime (2014) – Fate/Stay Night: Unlimited Blade Works

২০১৪ সালে কিন্তু তেমন একটা শীত পড়েনি,কেন জানেন তো ?? ভাবছেন গ্লোবাল ওয়ার্মিং, গ্রীন হাউস গ্যাসের জন্য?? উহু। এ বছরেই বের হয়েছে Fate/stay night: Unlimited Bladeworks, এবং JoJo’s Bizarre Adventure: Stardust Crusaders. এই দুটি নাম শুনে নিশ্চই বুঝতে পারছেন ঠান্ডা লাগার কোন চান্স-ই ছিলনা। বেশ প্রতিদ্বন্দ্বীতার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠিত ভোটে, সকলের থেকে এক ধাপ এগিয়ে ছিল এ বছরের একশন এনিমের বিজয়ী ”Fate/stay night:Unlimited bladeworks’ ‘ইউফোটাবল এর চোখ ধাধানো মন মাতানো দৃষ্টি নন্দন এনিমেশনের সাথে আর্চার সেইবার এর মত চরিত্র, আইডোলজি, একশন সিন এর সাথে ম্যাজিক সোর্ড ফাইট, সাস্পেন্স, ড্রামা সব কিছুর শত ভাগ ক্যামিস্ট্রি এর ফলাফল এই ফেট স্টে নাইটঃআনলিমিটেড ব্লেড ওয়ার্ক্স। সাথে JoJo’s Bizarre Adventure: Stardust Crusaders ও কিন্তু কম জায়না। এডভেঞ্চার,সুপারন্যাচারিলিটি,মাথা নস্ট একশন সিন ফ্যানসার্ভিস এবং পুরো সিরিজ জুড়ে নানা চেহারার নানা ক্ষমতার স্টান্ড আর সাথে জোজোর ম্যানলিনেস ছিল চোখে পড়ার মত। হাড্ডা হাড্ডি লড়াইয়ে জোজোকে পিছে ফেলে অবশ্য জয়ী ফেট স্টে নাইট। ২০১৪ সালের সেরা একশন এনিমে ”Fate/stay night:Unlimited bladeworks”কে জানাই অভিনন্দন।

1-best-action

 

Anime of the year: Runner-up (2014) – Mushishi Zoku Shou

Anime of the year: Runner-up (2014)

Mushishi Zoku Shou

মুশিশি হচ্ছে সেই আনিমেগুলোর একটা যা কেউ একবার দেখলে তা তার মনে দাগ কেটে রাখতে বাধ্য। এই আনিমের প্রথম সিজন প্রচারিত হয় ২০০৫ সালে। এবং এরপর যখন মানুষজন আশাই ছেড়ে দিয়েছিল এর সিজন টুয়ের তখনই আসে মুশিশি যোকু-শো সিজন ১, খান দুয়েক স্পেশাল এবং সিজন ২। এবং মুশিশি সিজন ২ এর পরে ২০১৫ তে বের হবে মুশিশির শেষ মুভি। এবং এর মধ্যে দিয়েই সমাপনী হবে মুশিশি গিনকোর গল্পের। ভুতুড়ে জীব মুশিদের পিছে পিছে চলতে গিয়ে জীবনের বিভিন্ন দিক তুলে ধরা এই এপিসোডিক আনিমেটি খুব ঠাণ্ডা একটা পেসিং এ মানুষের মনের মধ্যে দিয়ে অনুভূতির ঝড় বইয়ে দিতে পারে। কখনও হয়তো বিমল আনন্দে, কখনও বা দুঃখে। সাথে অবশ্যই বলা দরকার মুশিশির অসাধারণ সব সাউন্ডট্র্যাকের কথা। এবং প্রকৃতিকেও এত সুন্দরভাবে আর কয়টা আনিমেতে ফুটে তোলা গেছে সেটাও হাতে গোণার মত।
সব মিলিয়ে সর্বকালের সর্বসেরা আনিমের কোন লিস্ট করা হলে সেখানে হয়তো সহজেই ঢুকে যাবে এই অসাধারণ রকমের মৌলিক আনিমেটি।

0-aoty-runnerup